সোমবার ১৩ জুলাই ২০২০


বাবা সংসারের খুঁটি, বাতি ঘর


আমাদের কুমিল্লা .কম :
23.06.2020

খায়রুল আহসান মানিক।।
বাবা নেই। কোন ছবি ও নেই। মনের ক্যানভাসে কারও মুখয়ায়ব আঁকতে যে টুকুন স্মৃতি লাগে সেটুকুও নেই। কিছুই নেই। নোয়াখালীর হাতিয়ায় প্রথম শ্রেণীর ম্যাজিষ্ট্রেটের দায়িত্বে থাকা বাবা সরকারি কাজ শেষে ঢাকা থেকে কর্মস্থলে ফেরার পথে বঙ্গোপসাগরের ঘূর্ণিঝড়ে পড়ে জাহাজ ডুবিতে মারা গেলেন। আমরা কম বয়সী ছয় ভাই- বোন বাবা হারা হলাম। মা হলেন স্বামী হারা।বাবা না থাকা সন্তান ও স্বামী না থাকা স্ত্রীর কত যাতনা আমরা ও আমাদের মা হাড়ে হাড়ে বুঝতে শুরু করলাম। জীবিত বাবার আদুরে সন্তানরা তাঁর মৃত্যুর পর তাঁরই বাপ – ভাইদের কাছে নিগ্রহ ও মানসিক ভাবে নির্যাতনের শিকার হতে থাকলাম।

আমাদের সম্পদশালী দাদা ও চাচারা আমাদের সম্পদ আত্ম সাত করলেন। আমরা অনেকটা আর্থিক কষ্টে পড়লাম। আমাদের লেখা – পড়া ও জীবন ধারণেও এর প্রভাব পড়লো। তারা আমাদের ভাইদের ঐক্য ভাঙতে কূট চাল চাললেন।এ কাজে তারা স্বার্থকও হলেন। আমরা যেন মাথা তুলে দাঁড়াতে না পারি তার সব চেষ্টাই তারা করলেন। এক ভাইয়ের বিয়ে ভাঙলেন।বোনদের বিয়ে যেনো ভালো জায়গায় না হয় তাও করলেন।

এক পর্যায়ে বাবার কেনা জমি তাদের দখল থেকে উদ্ধার করতে গিয়ে ফৌজদারি মামলায় পড়লাম। মায়ের স্নেহ ছায়া ও তাঁর মানসিক দৃঢ়তার কারণে এবং আল্ল¬াহর অপার করুণায় তবু ও জীবন যুদ্ধে অনেকটা উৎরে গিয়েছিলাম। সন্তানের জীবনে বাবা থাকা যে কত প্রয়োজন সেটা বলার জন্যই এই লেখার অবতারণা। বাবা সংসারের খুঁটি। বাতি ঘর। আজ বাবা নেই। নেই দাদা ও চাচারা। আল্ল¬াহ বাবাকে বেহেশত নসীব করুন। একই সাথে দাদা এবং চাচাদেরকে ও। আমিন।
লেখক-এটিএন বাংলা, এটিএন নিউজের স্টাফ রিপোর্টার ও সিনিয়র সহ সভাপতি,বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কুমিল্লা জেলা। মোবাইল :০১৭১১-৩৭৫৮০৭ ।