সোমবার ১৩ জুলাই ২০২০


বরুড়ায় শিক্ষার্থীকে কুপিয়েছে মাদক ব্যবসায়ীরা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
26.06.2020

স্টাফ রিপোর্টার।।

কুমিল্লার বরুড়ায় নাছির হোসেন নামের কলেজ পড়–য়া এক শিক্ষার্থীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার (২৪ জুন) বাতাইছড়ি নতুন বাজার নামক এলাকায় আনুমানিক সন্ধা সাড়ে ৭ টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটে। সে বরুড়া রেহানা কারিগরি কলেজের দাদ্বশ শ্রেনীর বিএম শাখার ছাত্র। এঘটনায় ভিক্টিম বাদী বরুড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

জানা গেছে, উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের খটকপুর গ্রামের আবুল কাসেম মিয়ার নাছির হোসেন (২১) বরুড়া রেহানা কারিগরি কলেজে দাদ্বশ শ্রেনীতে পড়াশোনা করে। দীর্ঘদিন যাবৎ নাছিরকে স্থানীয় বখাটে যুবক তালহা তার সাথে কাজ করার জন্য বিভিন্ন ভাবে চাপ সৃষ্টি করে আসছিলো। তালহা মাদক ব্যবাসার সাথে জড়িত থাকার কারনে নাছির তাকে এরিয়ে চলে। এবং তালহাকে মাদক বিক্রির বিষয়ে প্রতিবাদ করায় সে নাছিরের উপর ছাড়াও হয়। এর পর থেকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানির করার অপচেষ্টা চালায় তালহা।
এর ধারাবাহিকতায় বুধবার সন্ধায় বাবার জন্য ঔষধ কিনতে বাতাইছড়ি নতুন বাজারে গেলে, তালহা তার সহযোগীদের নিয়ে পেছন থেকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। এতে নাছিরের মাথায় ও শরীরে বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত জখম হয়। হামলায় অংশ নেয় স্থানীয় বখাটে আরো তিন যুবক। তারা হলো, পাচঁকুরিয়া গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে হারুন (২৮), ফরিদের ছেলে আলমঙ্গীর হোসেন (২৫) ও মৃত- মহরম আলীর ছেলে রশিদ মিয়া (৪০) সহ অজ্ঞাত ৪/৫ জন যুবক। এসময় নাছির চিৎকার দিলে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে হামলাকারী তালহা ও তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। আহত নাছিরকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়।
এবিষয়ে আহত নাছির জানান, তালহা তার সাথে কাজ করার জন্য বিভিন্ন চাপ সৃষ্টি করে আসছে। এছাড়াও তালহা মাদক ব্যবাসার সাথে জড়িত থাকার কারনে নাছির তাকে এরিয়ে চলেন। এবং তালহাকে মাদক বিক্রির বিষয়ে প্রতিবাদ করায় সে নাছিরের উপর ছাড়াও হয়। সে তার উপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেন। এ বিষয়ে অভিযোক্তদের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি।
এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে জানতে চাইলে বরুড়া থানার এ এস আই নোমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,এ বিষয়ে এখনো মামলা হয়নি তবে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।