বৃহস্পতিবার ২ জুলাই ২০২০


ই-বন্ধন তৈরি করছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
30.06.2020

আবু সুফিয়ান রাসেল।।

ই-বন্ধন নামে মোবাইল অ্যাপ তৈরির ঘোষণা দিয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ।
এতে কলেজের সকল শিক্ষক, সামাজিক সংগঠনের তথ্য, মোবাইল নম্বর, ই মেইল ও ফেসবুক লিংক থাকবে বলে জানিয়েছেন কলেজ কতৃপক্ষ। সূত্র মতে, ২০০৭ সালের ডিসেম্বর থেকে বন্ধন নামে বার্ষিক প্রকাশনা প্রকাশ করে আসছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ শিক্ষক পরিষদ।

যার মধ্যে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ শিক্ষার্থীদের তালিকা, কলেজ সংক্রান্ত প্রাথমিক তথ্য, কলেজ পরিচিত, কলেজ প্রতিষ্ঠাকাল থেকে শুরু করে বর্তমান পর্যন্ত অধ্যক্ষগণের নাম ও কার্যকাল, বিভাগ ভিত্তিক শিক্ষকদের নাম, পদবি, চাকরিতে যোগদানের তারিখ, জন্ম তারিখ, স্থায়ী ঠিকানা, বর্তমান ঠিকানা, মোবাইল নম্বর ও ই-মেইল দেওয়া থাকে। এছাড়াও অফিস সহকারীবৃন্দের পরিচিতি, সরকারি বিভিন্ন দপ্তর, জেলা প্রশাসন, পত্র-পত্রিকা, বিশেষ প্রয়োজনীয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মোবাইল নম্বর রয়েছে। চলতি বছর বন্ধন প্রিন্ট কপির দ্বাদশ সংস্করণ ও প্রথম বারের মতো ই-বন্ধন প্রকাশ করবে ভিক্টোরিয়া কলেজ।

ভিক্টোরিয়া কলেজ সাংবাদিক সমিতি (কুভিকসাস) সভাপতি মাহদী হাসান বলেন, বন্ধন ম্যাগাজিনে প্রথম বারের মতো কলেজের সমাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নাম দেওয়া হয়েছে। কলেজের ইতিহাসে প্রথম ই-বন্ধন তৈরি হচ্ছে জেনে আমরা খুবই আনন্দিত। স্যারদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।

এ বিষয়ে শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত)
মোহাম্মদ শাহজাহান জানান, তথ্য প্রযুক্তির এ শতাব্দীতে সব কিছু ইন্টারনেট নির্ভর হচ্ছে। বই আকারে ছাপানো বন্ধন সব সময় সাথে রাখা যায় না। তবে মোবাইল আমাদের সাথে থাকে। যখন যে শিক্ষক বা সংগঠনের সাথে যোগাযোগ করার প্রয়োজন হবে, ই-বন্ধনে ক্লিক করলে কল চলে যাবে। এতে আধুনিক আরও সুযোগ সুবিধা যুক্ত করার চেষ্টা অব্যাহত আছে। এটি জুলাই মাসে পরীক্ষা মূলক ব্যবহার করা হবে। অাগষ্ট মাসে প্লে-স্টোরে দেওয়া হবে। যা প্রতিবছর আপডেট করা হবে। ভিক্টোরিয়া কলেজে এ ধরনের উদ্যোগ এ প্রথম। দেশের অন্য কোন কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতোপূর্বে এ ধরনের অ্যাপ তৈরি করেছে বলে, আমাদের জানা নেই। শিক্ষকদের অান্তরিক সহযোগীতায় অধ্যক্ষ স্যার নানা কল্যাণমুখী কাজ করে যাচ্ছেন। যার একটি প্রয়াস ই-বন্ধন।

কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. রুহুল আমিন ভূঁইয়া বলেন, ই-বন্ধন তৈরি হচ্ছে এতে আমরা খুবই অানন্দিত। কলেজের ইতিহাসে এটিই প্রথম। আশাকরি এতে শিক্ষক-শিক্ষার্থী সবাই উপকৃত হবে। এছাড়াও করোনা কালীন সময়ে শিক্ষকমন্ডলী ও কর্মচারীদের সহযোগীতায় অনেকগুলো কাজ সম্পাদিত হয়েছে। এতে যারা সহযোগীতা করেছে, তাদের ধন্যবাদ জানাই।করোনাকালীন সময়ে কলেজে সরকার নির্দেশিত নানা কার্যক্রম অব্যাহত আছে। একাদশ থেকে মাস্টার্স পর্যন্ত সকল শ্রেণির অনলাইন ক্লাস চালু আছে। ইতিমধ্যে ৫৭১টি ভিডিও ক্লাস কলেজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে দেওয়া হয়েছে।