শনিবার ১৫ অগাস্ট ২০২০


হোমনার ইউএনও তাপ্তি চাকমা করোনামুক্ত


আমাদের কুমিল্লা .কম :
13.07.2020

মোর্শেদুল ইসলাম শাজু, হোমনা ।।
করোনামুক্ত হলেন কুমিল্লার হোমনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাপ্তি চাকমা। করোনকালিন সচেতনতা সৃষ্টি, লগডাউন, হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে গিয়ে কোভিড-১৯ আক্রন্ত হন। তিনি গত ২৫ জুন করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিলে ২৮ জুন তার করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসে। তিনি চৌদ্দ দিন হোম আইসোলেশনে থাকার পর গতকাল ১৩ জুলাই সোমবার তার করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট আসে।
উল্লেখ্য, ইউএনও তাপ্তি চাকমার করোনা পজেটিভের খবরে উপজেলাবাসীর মনে দারুণভাবে দাগ কেটেছিল। ইউএনওকে দুই বছরের দুগ্ধপোষ্য শিশু পুত্র কাছাকাছি থাকলেও তাকে আদর ¯েœহ দিতে না পারার ব্যথা অনুভব করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে তার সুস্থতা কামনা করেছিলেন শত শত ইউজার। গতকাল সোমবার তার করোনামুক্ত হওয়ার খবরেও একইভাবে ফেইসবুকে এবং সরাসরি উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে শুকরিয়া জানাচ্ছেন তারা।
তিনি করোনাকালে শহর থেকে অজোপাড়া গাঁয়ের মানুষকে সচেতনতা সৃষ্টি, লকডাউন কার্যকর, করোনা আক্রান্ত এবং বিদেশ প্রত্যাগতদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত, বাজার নিয়ন্ত্রণে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা উন্নয়নমূলক কাজ তদারকি করে বেশ প্রশংসিত হয়েছেন। ইতোমধ্যে ফেইসবুকে তাকে “ওমেন অব হিউমিটি” খেতাবে ভূষিত করছেন কেউ কেউ।
তার সঙ্গে তার সরকারি গাড়িচালক আবদুর রহিম, পিয়ন আবুল হাসনাত ও নাইটগার্ড আবু তাহের করোনাক্রান্ত হয়েছিলেন এবং চৌদ্দ দিন হোম আইসোলেশনে থেকে দ্বিতীয় রিপোর্টের ফলাফলে একই সঙ্গে তারাও করোনামুক্ত হয়েছেন।
হোমনাবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সদ্য করোনামুক্ত ইউএনও তাপ্তি চাকমা বলেন, সৃষ্টিকর্তার কাছে শুকরিয়া জানাচ্ছি। পাশাপাশি হোমনাবাসী আমার ও আমার পরিবারের জন্য যেভাবে দোয়া করেছেন তাদের কাছে আমি সত্যিই ঋণী। তিনি আরও বলেন, করোনাক্রান্ত হওয়র পর প্রথম কয়েক দিন তেমন কোনো উপসর্গ ছিল না, হালকা গলব্যথা ছিল। কিন্তু অষ্টম দিনে শ^াসকষ্ট দেখা দিয়েছিল। তখন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তারগণ আমার যথেষ্ট ‘টেক কেয়ার’ করেছে। সঙ্গে সঙ্গে আমাকে অক্সিজেনের ব্যবস্থাও করেছিল। এজন্য তাদেরকেও আমি আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাই। এত দিন হোম আইসোলেশনে থাকলেও অত্যন্ত সাবধানতা অবলম্বন করে বাসায় বসেই আমাকে অফিসের কাজকর্ম করতে হয়েছে।