বৃহস্পতিবার ১৩ অগাস্ট ২০২০


১১ ইন্সপেক্টরসহ কুমিল্লার ১৮৬ পুলিশ করোনায় আক্রান্ত , প্লাজমা দিলেন ২৭ জন


আমাদের কুমিল্লা .কম :
14.07.2020

খায়রুল আহসান মানিক।।
করোনা দুর্যোগে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে এ পর্যন্ত কুমিল্লা জেলা পুলিশের ১৮৬ জন সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে কাজে ফিরেছেন ৭৪ জন। তবে কেউ মারা যাননি। সুস্থদের মধ্য থেকে ২৭ জন পুলিশের ব্লাড ব্যাঙ্কে প্লাজমা ডোনেট করেছেন। আক্রান্ত সদস্যরা জেলা পুলিশের বিভিন্ন বিভাগে এবং বিভিন্ন থানায় কর্মরত ছিলেন। তথ্য কুমিল্লা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের।
করোনা আক্রান্তের মধ্যে রয়েছেন ১১ ইন্সপেক্টর, ২৫ জন সাব ইন্সপেক্টর, ৩৬ জন এসিসট্যান্ট সাব ইন্সপেক্টর, একজন নায়েক ও ১১৩ জন কনস্টেবল। এর বাইরেও পুলিশে কর্মরত নন পুলিশ ( সিভিল ) এর আটজন সদস্যও আক্রান্ত হয়েছেন। এদের আটজনের মধ্যে দুইজন সুস্থ হয়েছেন।
জেলা পুলিশের ইউনিট ভিত্তিক আক্রান্তের সংখ্যা হচ্ছে,পুলিশ লাইন্সে ১৫ জন। ট্রাফিকে পাঁচজন। কোর্ট পুলিশে দুইজন। ডিবিতে তিনজন। কন্ট্রোল রুমে পাঁচজন। অপরাধ শাখায় দুইজন। পুলিশ হাসপাতালে একজন। ডিএস বিতে একজন। কোতোয়ালি থানায় আটজন। সদর দক্ষিণ থানা ছয়জন। চৌদ্দগ্রাম থানায় চারজন। চান্দিনা থানায় একজন। বুড়িচং থানায় নয়জন। ব্রাহ্মণপাড়া থানায় পাঁচজন। বরুড়া থানায় সাতজন। লাকসাম থানায় সাতজন। মনোহরগঞ্জ থানায় তিনজন। নাঙ্গলকোট থানায় ২০ জন। দাউদকান্দি থানায় ১৭ জন। হোমনা থানায় চারজন। মেঘনা থানায় দুইজন। তিতাস থানায় ছয়জন। দেবিদ্বার থানায় ১৭ জন। মুরাদনগর থানায় নয়জন। বাঙ্গরা থানায় ১৬ জন এবং লালমাই থানায় ১১ জন।
সুস্থ হওয়া ৭৪ জন পুলিশ সদস্যদের মধ্যে ৩১ জনের এন্টিবডি টেস্ট করা হয়। এদের মধ্যে ২৭ জনের রক্তে এন্টিবডি পজিটিভ ( করোনা ভাইরাস প্রতিরোধী ক্ষমতা ) পাওয়া যায়। এই সকল পুলিশ সদস্যরা গত ৯ জুলাই ঢাকার রাজারবাগ বাংলাদেশ পুলিশ হাসপাতালের ব্লাডব্যাঙ্কে প্লাজমা ডোনেট করেছেন। তাদের দেওয়া প্লাজমা করোনা আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসায় ব্যবহৃত হবে। প্লাজমা ডোনেটকারীদের মধ্যে রয়েছেন দুইজন ইন্সপেক্টর, দুইজন সাব ইন্সপেক্টর, চারজন সাব এসিসট্যান্ট ইন্সপেক্টর এবং ১৯ জন কনস্টেবল।
কুমিল্লার পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বলেন, করোনা দুর্যোগ মোকবেলায় দিনে Ñ রাতে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে জেলা পুলিশের এসকল সদস্য আক্রান্ত হয়েছে। অনেকেই সুস্থ হয়েছেন। কেউ কেউ এখনও সুস্থ হননি। সুস্থদের মধ্য থেকে ২৭ জন পুলিশের ব্লাড ব্যঙ্কে প্লাজমা ডোনেট করেছেন। যা প্রশংসনীয় করোনা আক্রান্ত রোগীদের প্রাণ বাঁচাতে এই প্লাজমা কাজে আসবে।