বৃহস্পতিবার ১৩ অগাস্ট ২০২০


বাড়ি উদ্ধার ও সন্তানদের ফেরতের দাবি


আমাদের কুমিল্লা .কম :
14.07.2020

স্টাফ রির্পোটার ।।
কুমিল্লায় দখলকৃত বাড়ি উদ্ধার ও সন্তাদের ফিরে পেতে সংবাদ সম্মলন করেছেন নাসরিন আক্তার রিমা নামের এক নারী। তিনি নগরীর একটি রেস্তোরাঁয় মঙ্গলবার এই সংবাদ সম্মেলন করেন। তিনি চট্টগ্রামের আক্তার হোসেনের মেয়ে। সংবাদ সম্মলনে ওই নারী অভিযোগ করেন তার প্রাক্তন স্বামী শাহাদাত হোসেন রাবেলের বিরুদ্ধে।
সংবাদ সম্মলনে লিখিত বক্তব্যে নাসরিন আক্তার রিমা বলেন, আমি গত ১৩ বছর যাবত নিজস্ব বাসায় বসবাস করে আসছি। ১৩ বছর পূর্বে মো.সাহাদাত হোসেন রাবেলের সাথে তার বিয়ে হয়। আমাদের দাম্পত্য জীবনে এক মেয়ে ও এক ছেলের জন্ম হয়। আমার বিয়ের পূর্বে আমার মা মারা যাওয়ার পর বাবা অন্যত্র বিয়ে করলে আমি এতিম হয়ে পড়ি। তখন আমার নানী ও খালা-খালুর কাছে আমি বড় হই। আমার নানীর বিশাল সম্পত্তি থেকে তিনি আমাকে কালিয়াজুরী ভূঁইয়া বাড়িতে দুইটি প্লট দিয়েছিলেন। উক্ত জায়গায় আমার নানী ও খালা, খালু সহযোগিতা করে দুইটি টিন সেড বাড়ি নির্মাণ করে দেন। আমার নানী মৃত্যুবরণ করার পর আমার প্রাক্তন স্বামী আমাকে বিভিন্ন ভাবে জায়গা বিক্রি করে তাকে টাকা দেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। এমনকি জায়গা বিক্রি করে টাকা না দিলে সে আত্মহত্যা করে আমাকে ফাঁসাবে মর্মে হুমকি প্রদান করে। উক্ত ঘটনাটি আমার খালা-খালু, তার বোন ও মাকে জানালে সে প্রকাশ্যে আমাকে ও আমার খালা-খালুকে হুমকি প্রদর্শন করে। তখন আমি স্থানীয় নারী কাউন্সিলরকে (সংরক্ষিত) বিষয়টি অবগত করে গত বছরের ১৩ জুলাই কোতয়ালী থানায় একটি অভিযোগ দেই। এই অভিযোগ দেওয়ার পর সে আরও ক্ষিপ্ত হয়ে যায়।
তিনি আরো বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় সে আমার খালা-খালুসহ আমার পরিচিতজনদের উক্ত্যক্ত করা শুরু করে। আমি তাকে বিগত ০১/০৮/২০১৯ইং তারিখে বিবাহ বিচ্ছেদের নোটিশ প্রদান করি। তারপর সে আমিসহ আমার খালা-খালুকে সামাজিক ও রাজনৈতিকসহ বিভিন্নভাবে হেনস্তা করা শুরু করে। এরপর সে বিগত ২১/০৯/২০১৯ ইং তারিখে আমার খালা-খালু ও একজন নিকট আত্মীয় এর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করে। তখন আমি আমার নানীর দানকৃত বাড়িতে বসবাস করে আসছিলাম। ১১/১০/২০১৯ইং তারিখে আনুমানিক রাত ৯ ঘটিকায় আমার বসবাসরত কালিয়াজুরি ভূঁইয়া বাড়িতে বসত ঘরে সে তার বোন, বোনের জামাইসহ কিছু সন্ত্রাসী নিয়ে আমার উপর হামলা করে এবং আমাকে আমার বাড়ি থেকে জোরপূর্বক বের করে দেয়। এরপর থেকে আমি আমার খালার বাসায় অবস্থান করি। আমি উক্ত বিষয়টি কোতয়ালী থানা পুলিশকে অবগত করেও কোন সুরাহা পাইনি। এখন সে আমাকে জোর করে নিয়ে যাওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে পাঁয়তারা করছে। সে বিগত ০৬/১১/২০১৯ইং তারিখে আমিসহ আমার খালা-খালুর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করে। তখন কোতয়ালীর থানা পুলিশ আমি, আমার খালা ফয়েজা খাতুন ও আমার খালু জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। ১১/১১/২০১৯ ইং তারিখে কোর্ট থেকে জামিন লাভ করি। আমি আমার ও আমার আত্মীয় স্বজনদের বিরুদ্ধে পুলিশি মামলা ও হয়রানি বন্ধ এবং আমার বাড়ির ফিরে পাওয়ার মর্মে মাননীয় পুলিশ সুপারের শরনাপন্ন হই। আমার প্রাক্তন স্বামী শাহাদাত হোসেন রাবেল আমার বাড়ি দখলের পাশাপাশি আমার ছেলেকেও জোরপূর্বক আটক করে রেখেছে। আমার ছেলের বয়স ৬ বছর। আমার মেয়ের বয়স ১১ বছর। আমার মেয়েকে বিভিন্ন কু-পরামর্শ দিয়ে আমার থেকে দূরে সরিয়ে রেখেছে। বিভিন্ন লোকজন নিয়ে সে আমাকে এই মর্মে হুমকি প্রদান করে যে আমাকে জোর করে তুলে নিয়ে যাবে এবং আমার সাথে জোর করে সংসার করবে।