শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০


বঙ্গবন্ধুর প্রতি ভালবাসা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
29.08.2020

তরিকুল ইসলাম তরুন।।

বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত একটি পত্রিকার একাংশ রাস্তায় পড়ে আছে। পথচারীরা কাগজটিতে পাড়া দিলে বঙ্গবন্ধুর গায়ে পাড়া পড়বে। এই ভেবে রাস্তা থেকে পরম মমতায় কাগজটি তুলে নিয়ে বুকে জড়িয়ে ধরলেন  সফিকুর রহমান নামের এক সাবেক সেনা সদস্য। জাতীর জনকের প্রতি এই ভালবাসা থেকে উপস্থিত অনেকেই তাকে ধন্যবাদ জানান। ঘটনাটি  ঘটেছে গত ২৬ আগস্ট কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার কংশনগর বাজারে।

ঘটনার একাধিক প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে জানা যায়, ব্রাহ্মনপাড়া উপজেলার মনোহরপুর। গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য হাজী সফিকুর রহমান। বয়স প্রায় ৯০ হবে। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় তিনি পশ্চিম পাকিস্তানে অন্যান্য বাঙ্গালী সেনা সদস্যদের সাথে বন্দি ছিলেন। দেশ স্বাধীন হলে দেশে ফিরে এসে আবার সামরিক বাহিনীতে যোগ দেন। কিছু দিন ডিউটি করেছেন বঙ্গবন্ধুর। তাই বঙ্গবন্ধুকে কাছ থেকে দেখার সুযোগ হয়েছে। তিনি বঙ্গবন্ধুর ৩২  নম্বরের বাসায় ভাতও খেয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

বঙ্গবন্ধু ও তার  পরিবারের প্রতি রয়েছে তার অসীম শ্রদ্ধা ও বুক ভরা ভালবাসা। তাই যেখানেই তিনি বঙ্গবন্ধুর ছবি দেখেন অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকেন। গত ২৬ আগস্ট কংশনগর বাজার দিয়ে হেঁটে যাচ্ছেন। হঠাৎ চোখে পড়ল রাস্তার উপর একটি পত্রিকার অংশ পড়ে আছে। পত্রিকাটিতে রয়েছে বঙ্গবন্ধু ও তার কত্যা প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি। সাথে সাথে তিনি রাস্তা থেকে কুড়িয়ে কাগজটি নিয়ে নিজের পাঞ্জাবী দিয়ে মুছে বুকে জড়িয়ে ধরলেন। রাস্তায় বঙ্গবন্ধুর ছবি এভাবে পড়ে আছে দেখে চোখ দিয়ে তার পানি আসছে। বিষয়টি লক্ষ করলেন আসে পাশের ব্যবসায়ীরা। বৃদ্ধ এই সাবেক সেনা সদস্যকে ঘিরে মুহুর্তেই চার দিকে লোক জড়ো হয়ে গেল। জানতে চাইলেন ,কি ব্যাপার,আপনি একটি কাগজ উঠিয়ে গায়ের কাপড় দিয়ে মুছে বুকে জড়িয়ে ধরলেন কেন?

তখন কান্না জর্জরিত কন্ঠে বৃদ্ধ সফিকুর রহমান জানালেন জীবিত থাকা অবস্থায় তিনি বঙ্গবন্ধুর ডিউটি করেছেন। বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে ভালবাসেন জীবন দিয়ে। তাই বঙ্গবন্ধুর কোন ছবি রাস্তায় পড়ে থাকলে তার সহ্য হয় না। তিনি মনে করেন বঙ্গবন্ধু এই বাঙ্গালী জাতির শুধু পিতাই নন। তিনি প্রতিটি বাঙ্গালীর মনের গহিনে বাস করেন। তার যে কোন পর্যায়ের সামান্য অবমাননা তিনি মেনে নিতে পারেন না। এজন্যই তিনি বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত কাগজ পড়ে থাকতে দেখে উঠিয়ে নিয়েছেন।

এ ব্যাপারে কংশনগর বাজারের ব্যবসায়ী বীর মুক্তিযোদ্বা মোজাম্মেল হক জানান তার আবেগ অনেক বড় মনের। তারপ্রমান আমরা আজ স্বচক্ষে দেখলাম।তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর ছবি তো প্রায় পত্রিকাতেই থাকে।আর পত্রিকার অংশতো রাস্তাঘাটে পড়ে থাকে।

কিন্তু কেউতো হাজী সফিকুর রহমানের মত বড় মন নিয়ে বুকে চেপে ধরে  সম্মান করে না।আমরা তার প্রতি শ্রদ্বা জানাই বঙ্গবন্ধুর প্রতি এভাবে জনসচেতনতা সৃষ্টি করার জন্য ।