শনিবার ২৪ অক্টোবর ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 2 » মানুষের পাশে ইউছুফপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল


মানুষের পাশে ইউছুফপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল


আমাদের কুমিল্লা .কম :
07.10.2020

মোহাম্মদ শরীফ।।
করোনাকালীন সময়ে ত্রাণ বিতরণ, লক ডাউন বাস্তবায়ন, অসহায় পরিবারে ব্যক্তিগত অর্থায়নে খাদ্য সহায়তা, সরকারি বিভিন্ন ত্রাণ এলাকায় ভিত্তিক বিতরণ, বেহাল রাস্তা-ঘাট সংস্কার, সড়কের গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে বৈদ্যুতিক লাইট স্থাপন, ব্রিজ-কালভার্ট ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভবন নির্মাণসহ নানান কল্যাণমূলক কাজের জন্য দেবিদ্বারে প্রশংসিত হয়েছেন ২নং ইউছুফপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল চৌধুরী। এছাড়া করোনা আক্রান্ত রোগীদের মাঝে চিকিৎসা ও ঔষধ সামগ্রী প্রদান করেন এই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি। যথাযথ দায়িত্ব পালনের জন্য দেবিদ্বারে প্রশংসিত ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল চৌধুরী। এছাড়া সরকারি বিভিন্ন কর্মসূচির ত্রাণ নিজে উপস্থিত থেকে বিতরণ করেন তিনি। স্থানীয়রা বলছেন, ‘দেবিদ্বারে বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ত্রাণ আত্মসাৎ, খাল দখল, নির্যাতনসহ নানা অভিযোগ উঠলেও, বরাবরই দুর্নীতি মুক্ত হওয়ায় প্রশংসিত হয়েছেন এই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি। মাদক নির্মূলে কঠোর অবস্থানে ছিলেন এই ইউপি চেয়ারম্যান’। এছাড়া শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক নানা কার্যক্রমে তাঁর একাগ্রতা ছিল প্রশংসনীয়। খেলাধুলা বিকাশে মাঠ সংস্কার ও বিভিন্ন টুর্নামেন্ট আয়োজনে ব্যক্তিগত সহায়তা প্রদানে মাধ্যমে যুবকদের করেছেন উৎসাহিত। ইউনিয়নের মুগসাইর গ্রামের মনির হোসেন বলেন, ‘ইউনিয়নের যেকোনো গ্রামের ঝগড়া বা কলহ তৈরি হলে তিনি সাথে সাথে উপস্থিত হন। নিজেই সমাধান দেন। কোনো কলহই তিনি থানা পর্যায়ে যেতে দেন না’। কুমিল্লা উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘খারাপ কাজের প্রতিবাদ করা যেমন আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। ভাল কাজেরও প্রশংসা করাও আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। আমার দেখা দেবিদ্বার উপজেলার শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান হলেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা, ইউছুফপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল চৌধুরী’। কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আবু কাউছার অনিক এই নেতার সম্পর্কে বলেন, ‘বাংলাদেশের রাজনীতির যখন ক্লান্তিকাল ছিল, তখন তিনি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের স্লোগান নিয়ে কাজ করেছিলেন। আমার দেখা অহংকারহীন জন বান্ধব শ্রেষ্ঠ একজন চেয়ারম্যান তিনি’। দেবিদ্বার উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ সভাপতি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম ওমানী বলেন, ‘নিজের গলার সোনার চেইন বিক্রি করে সংগঠন চালিয়েছেন মোস্তফা কামাল চৌধুরী। আমিসহ উপজেলার সকল নেতা তাঁর হাতে তৈরি। আমি মনে করি দেবিদ্বারের ১৫টি ইউনিয়নের মধ্যে শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান তিনি। আমি দৃঢ়ভাবে প্রত্যাশা করি তিনি আগামী নির্বাচনেও নৌকার প্রতীক পাবেন’। মোস্তফা কামাল চৌধুরী বলেন, ‘আমি একজন প্রচার বিমুখ মানুষ। সর্বদা চেষ্টা করি মানুষের পাশে থাকতে, মানুষের জন্য কাজ করতে। এটুকু বলতে পারি দায়িত্ব নিয়ে ইউছুফপুর ইউনিয়নকে অন্যান্য ইউনিয়নের চেয়ে ৩০ বছর এগিয়ে নিয়েছি’।