বুধবার ২৫ নভেম্বর ২০২০


স্ত্রীর গলায় ছুরি চালিয়ে চোরের উপর দোষ!


আমাদের কুমিল্লা .কম :
25.10.2020

দেবিদ্বার প্রতিনিধি ||

কুমিল্লার দেবিদ্বারে নিজের বউয়ের গলায় চুরিয়ে চালিয়ে গহনা নিয়ে চোরের উপর দায় চাপানোর অভিযোগ উঠেছে। ওই ঘটনায় পুলিশ মাদকাসক্ত স্বামী মোঃ ফারুক আহাম্মদকে(৩০) গ্রেফতার করে রোববার কারাগারে প্রেরণ করেছে। আহত গৃহবধূকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন। গ্রেফতার হওয়া ফারুক উপজেলার বারুর গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে। ওই ঘটনায় আহত গৃহবধূর ভাই মেহেদী হাসান বাদী হয়ে ভগ্নিপতি মোঃ ফারুক আহাম্মদ, বোনের শ^শুর নুরুল আমীন এবং শাশুড়ি দেলোয়ারা বেগমকে আসামি করে দেবিদ্বার থানায় একটি মাামলা করেছেন।
স্থানীয়রা জানান, গত বছরের ১১নভেম্বর দেবিদ্বার উপজেলার বারুর গ্রামের আলী হোসেন মাস্টার বাড়ির নুরুল ইসলামের ছেলে মোঃ ফারুকের সাথে একই উপজেলার বারেরা গ্রামের আমানতের বাড়ির আবুল হাসেমের মেয়ে ফারহানা আক্তারের (২২) সাথে বিয়ে হয়। ফারুক তখন ঢাকায় একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে কর্মরত ছিল। বিয়ের ৩মাসের মধ্যেই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক বিরোধ শুরু হয়। এক পর্যায়ে স্বামীর মারধরে অসহ্য হয়ে ফারহানা আক্তার পিতার বাড়িতে চলে আসেন। গত শনিবার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে মেয়ের বাড়িতে এক সালিস বসে। উভয় পক্ষের সমঝোতায় বিকেলেই স্বামী ফারুক তার স্ত্রী ফারহানাকে নিয়ে বাড়ি যায়।
মামলার বাদী ফারহানার ভাই মেহেদী হাসান বলেন, রাত ৮টায় তার বোন জামাই ফারুক ফোনে জানায় একদল চোর চুরি করতে এসে তার বোনকে হাত- পা বেঁধে গলায় ছুরি ঠেকিয়ে গলা ও কানের অলংকার ছিনিয়ে নেয়। সংবাদ পেয়ে গৃহবধূর বাড়ির লোকজন ফারহানাকে উদ্ধার করে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।
মেহেদী হাসান’র বোন ফারহানা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জানান, সন্ধ্যায় তার স্বামীর সাথে কথাকাটাকাটি হয়। রাত ৮টায় হঠাৎ তার স্বামী পেছন দিক থেকে লাঠি আঘাত করলে সে মেঝেতে লুটিয়ে পড়ে। তার গহনা নিয়ে যায়। এরপরই ফল কাটার ছুরি দিয়ে গলায় পোঁচাতে থাকে, সে দু’হাতে বাঁচার চেষ্টা করলে দু’হাতের তালু কেটে যায়। চিৎকারে বাড়ির লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতাল ভর্তি করান।
দেবিদ্বার থানার ওসি মো. জহিরুল আনোয়ার জানান, প্রধান অভিযুক্ত ফারুককে গ্রেফতার করে কুমিল্লা আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।