শনিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২১


আটটি কেন্দ্রে ধানের শীষ প্রতীকে কোন ভোট পড়েনি!


আমাদের কুমিল্লা .কম :
26.10.2020

মহিউদ্দিন মোল্লা।।
কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাচনে ভাউরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রদত্ত ২৯শ’ ভোটের সব বৈধ। সবগুলো নৌকা প্রতীকে পড়েছে। ধানের শীষে শূন্য। এই ফলাফল শিটটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। এদিকে আটটি কেন্দ্রে ধানের শীষ প্রতীকে কোন ভোট পড়েনি। প্রাথমিক বেসরকারি ফলাফল শিট থেকে এ তথ্য জানা যায়।
সূত্রমতে, ২০ অক্টোবর দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকে মোহাম্মদ আলী ও ধানের শীষ প্রতীকে সাইফুল আলম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ১০২টি কেন্দ্রের মধ্যে অনিয়মের কারণে দুইটি কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। বাকী একশ’টি কেন্দ্রের মধ্যে আটটি কেন্দ্রে ধানের শীষ প্রতীকে কোন ভোট পড়েনি। কালাইরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র। এখানে প্রদত্ত ১৩শ’৭৩ ভোটের মধ্যে সব নৌকা প্রতীকে পড়েছে। কোন ভোট বাতিল হয়নি। অন্য কেন্দ্রগুলো হচ্ছে,জামালকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,জুরানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ২য় তলা,গোলাপের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দৌলতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ভাউরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মোহাম্মদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ঢাকারগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র। এদিকে কোন কেন্দ্রে ধানের শীষের চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট না পেলেও ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ভোট পেয়েছেন। নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট পেয়েছেন এক লাখ ৫২হাজার ২৩০টি। ধানের শীষের চেয়ারম্যান প্রার্থী পেয়েছেন চার হাজার ২৪১টি। ধানের শীষের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রুহুল আমিন পেয়েছেন পাঁচ হাজার ২৮৮টি ভোট। একই প্রতীকের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ফরিদা ইয়াছমিন পেয়েছেন ১০হাজার ২৭৮টি ভোট।
ধানের শীষ প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী সাইফুল আলম বলেন,দাউদকান্দি বিএনপির ঘাঁটি। এখানে প্রহসনের নির্বাচন হয়েছে। ভোটার ও ধানের শীষের এজেন্টদের কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। কেন্দ্রে ভোটার না গেলেও ফলাফল শিটে মন মতো ভোট সংখ্যা বসিয়ে দেয়া হয়েছে। নির্বাচন কমিশনে বার বার অভিযোগ দিয়েও কাজ হয়নি। অনিয়ম দেখে বেলা সাড়ে ১২টায় নির্বাচন প্রত্যাখান করেছি।
এবিষয়ে দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন,আমরা নির্বাচনের দিন অভিযোগ পেয়ে কয়েকটি ব্যবস্থা নিয়েছি। নির্বাচনে সবাই জয়ী হয় না, কেউ জিতে কেউ হারে। মূলত যারা পরাজিত হয় তারা বিভিন্ন অভিযোগ তোলে।