শুক্রবার ২৭ নভেম্বর ২০২০


বরুড়ায় দুর্গাপূজায় অনুদানের চাল সমবন্টন, সন্তোষ প্রকাশ ৮২টি পূজামন্ডপের নেতাদের


আমাদের কুমিল্লা .কম :
02.11.2020

স্টাফ রিপোর্টার।। কুমিল্লার বরুড়া উপজেলা এবারের দুর্গাপূজায় সরকারি অনুদানের চালের সমবন্টন সম্পন্ন হয়েছে। ৮২টি পূজামন্ডপের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে গত ১৬ অক্টোবর বরুড়া নৃ-সিংহ ও জগন্নাথ মন্দিরে পূজা উদযাপন পরিষদের সাথে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। ওই আলোচনা সভায় সরকারি অনুদানের চাল মন্দির কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে বুঝে নেওয়ার জন্য পূজা উদযাপন পরিষদ আহ্বান জানান। তবে বর্তমান করোনাকালীন সময়ে চাল না নিয়ে নগদ টাকা প্রদানের অনুরোধ রাখেন ৮২টি পূজামন্ডপের প্রতিনিধিরা। এ সময় ৮২টি মন্দির কমিটি যৌথ বিবৃতিতে বলেন, চাল না নিয়ে ওই চাল বিক্রি করে সমবণ্টন করে প্রতিটি মন্দিরকে দেওয়ার অনুরোধ জানান। তাছাড়া তারা চাল বহন করতেও অপারগতা জানান। এদিকে, তারা আরো অনুরোধ করেন সামনে বাসন্তি পূজা। করোনাকালীন অবস্থায় মানুষের হাতে টাকা নেই। কিন্তু পূজা তো চালিয়ে যেতে হবে। তাই তারা বাসন্তি পূজার জন্য কিছু টাকা পূজা উদযাপন পরিষদের একাউন্টে জমা রাখার আহ্বান জানান। পূজা উদযাপন কমিটি তাদের অনুরোধ ও আহ্বানের সাড়া দিয়ে একটি রেজ্যুলেশন করেন। ওই রেজ্যুলেশনের ভিত্তিতেই চাল বিক্রি করে নগদ ১৪ হাজার টাকা করে প্রতি পূজামন্ডপে সমহারে বন্টন করা হয় এবং কিছু টাকা আগামী বাসন্তি পূজার জন্য রেখে দেওয়া হয়। রেজ্যুলেশনে সকল পূজা মন্ডপের নেতৃবৃন্দ স্বার করেণ। যা বর্তমান পূজা কমিটির কাছে জমা আছে। এ ব্যাপারে ভৌমুরী পূজা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সুদর্শন বনিক বলেন, সকল পূজামন্ডবে সম্মতিক্রমেই চালগুলো বিক্রি করা হয়েছে। এই বছরই প্রতিটি মন্দিরকে সমপরিমাণ টাকা দেওয়া হয়েছে। এখানে চালবাজি বা দুর্নীতির কোনো প্রশ্নই আসে না। অনুদানের চাল বিক্রির প্রসঙ্গে তলাগ্রাম গৌড়নিতাই আখড়ার সভাপতি জীবন সাহা বলেন, এখানে পূজা উদযাপন কমিটি চালই দিতে চেয়েছিল; কিন্তু আমরা বলেছি করোনার মধ্যে চাল বহন করতে পারবো না। আপনার বিক্রি করে সমহারে বন্টন করে দিন। এ প্রসঙ্গে লিপন সরকার বলেন, এবারই ৮২টি মন্দিরে সুন্দর ও সমহারে বন্টন হয়েছে। এজন্য বরুড়া পূজা উদযাপন কমিটিকে ধন্যবাদ জানাই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন বলেন, শুধু বরুড়া কেন, সারা বাংলাদেশেই পূজায় অনুদানের চালগুলো বিক্রি করে সমবন্টন করে দেন পূজা উদযাপন পরিষদ। সমাজে হাজার হাজার সমস্যা রয়েছে, অথচ হিন্দু সমাজকে বিতর্কিত করতে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত একশ্রেণির স্বার্থান্বেষী মহল।