শুক্রবার ২৭ নভেম্বর ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » ১২৫ বছরের পুরোনো রেলওয়ে স্টেশনে আজও সংকট কাটেনি


১২৫ বছরের পুরোনো রেলওয়ে স্টেশনে আজও সংকট কাটেনি


আমাদের কুমিল্লা .কম :
18.11.2020

কুমিল্লা রেলওয়ে স্টেশন

আবদুল্লাহ আল মারুফ।।
প্রতিষ্ঠার পর ১২৫ বছর পার হলেও এখনও নানান সমস্যায় জর্জরিত কুমিল্লা রেলওয়ে স্টেশন। একগাদা অভিযোগ নিয়ে বিরক্তির ক্ষণ গনেন যাত্রীরা। সরেজমিনে দেখা যায় বিশ্রামাগারগুলো বন্ধ থাকে দিনের বেশিরভাগ সময়৷ ভাঙা ও নিচু প্ল্যাটফর্মের কারণে যাত্রী ওঠানামায় মারাত্মক বিপদের সম্ভাবনা থাকে। হকার ও ভিক্ষুকদের উৎপাত লেগেই থাকে সর্বক্ষণ । তার মধ্যে টিকিট সংখ্যা কম থাকায় চরম মাশুল দিতে হচ্ছে কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গমনকারী যাত্রীদের৷ আন্তনগর ২৮ টি ও মেইল এক্সপ্রেস ৪টি ট্রেনের মাত্র ২৫০টি টিকিট এই স্টেশনে বিক্রি হয়৷ বাকি যাত্রীরা কেউ ফ্রি কেউ আবার দালাল ধরে যাতায়াত করছে প্রতিনিয়ত। ছিনতাইকারী ও হিজড়াদের কারণের প্রতিনিয়তই কেউ না কেউ তাদের গুরুত্বপূর্ণ জিনিসপত্র খোয়াতে হয়। সিসি ক্যামেরা বন্ধ থাকায় খোয়া যাওয়া জিনিসপত্র আর ফিরে পাওয়া সম্ভবপর হয় না। এদিকে বিশুদ্ধ পানির রয়েছে চরম ঘাটতি। পুরো স্টেশন জুড়ে মাত্র পানির একটি ট্যাপ৷ সেটি কর্দমাক্ত হয়ে থাকে।
এসব বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলে কুমিল্লা রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার সফিকুর রহমান ভূঁইয়া বলেন, জনবল না থাকায় জোড়াতালি দিয়েই চলছে কুমিল্লা স্টেশন। তাছাড়া প্ল্যাটফর্ম ও ফুটওভার ব্রিজ চলমান একটি প্রকল্পের অধীনে নেওয়া হয়েছে। খুব শীঘ্রই সেগুলোর উন্নয়ন কাজ করা হবে। আর বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা রয়েছে, কিন্তু জনবল কম হওয়ায় ভালোভাবে আমরা কুলিয়ে আসতে পারছি না৷
নিরাপত্তা ব্যাপারে জানতে চাইলে জনবল ঘাটতির কথা জানান তিনি। এছাড়াও বিশ্রামাগার ৫ টি বিশ্রামাগারের জন্য মাত্র একজন কর্মী থাকায় কুলিয়ে আসতে পারছেন না বলেও তিনি জানান। তিনি আরও বলেন খুব শীঘ্রই এসব সমস্যা সমাধান করা হবে।