সোমবার ৩০ নভেম্বর ২০২০


জাতীয় ফুটবলার বাদল রায় আর নেই


আমাদের কুমিল্লা .কম :
22.11.2020

স্টাফ রিপোর্টার।।
বাংলাদেশ দলের সাবেক ফুটবলার বাদল রায় আর নেই। লিভার ক্যান্সারে ভুগতে থাকা জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কারপ্রাপ্ত সাবেক এই তারকা রোববার (২২ নভেম্বর) রাজধানীর একটি হাসপাতালে মৃত্যু বরণ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। তার বাড়ি কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলায়। ১৯৯১ সালে নৌকা প্রতীকে দাউদকান্দিতে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেন। বাদল রায়ের মৃত্যুর সংবাদ নিশ্চিত করেছেন ঢাকা আবাহনীর ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রুপু।
সত্যজিৎ দাস রুপু বলেন, ‘বাদল রায় আর আমাদের মাঝে নেই। আজ বিকেল ৫ টা ৩৬ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা গেছেন।’
দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক নানান সমস্যায় ভুগছিলেন এই তারকা। রাজধানী ঢাকার আসগর আলী হাসপাতালে শ্বাসকষ্টজনিত অসুখ নিয়ে কিছু দিন আগে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। পরবর্তীতে কিডনিতে জটিলতা দেখা দিলে তাকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাঁর লিভার ক্যান্সার ধরা পড়ে।
এর আগে গত ১৩ আগস্ট করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন বাদল রায়। বাসায় থেকে চিকিৎসা নিয়ে করোনামুক্তিও মেলে তার। কিছুটা সুস্থ থেকে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের গত নির্বাচনে নেমেছিলেন তিনি।
২০১৭ সালে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে জীবন সংকটাপন্ন হয়ে পড়েছিল বাদল রায়ের। সেই সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় তাকে চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর পাঠানো হয়। সেখানে দীর্ঘদিন চিকিৎসা নিয়ে তিনি সুস্থ হয়ে দেশে ফেরেন।

বাফুফের সাবেক সহসভাপতি ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেডের সাবেক পরিচালক বাদল রায়। তিনি মোহামেডানের জার্সিতে ১২ বছর খেলেছেন।
বাদল রায়ের ঘনিষ্ঠ বন্ধু আব্দুল গাফফার গত ১৫ নভেম্বর গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, ‘আমাদের জন্য অনেক দুঃখের দিন। অনেক পরীক্ষা নিরীক্ষার পর চিকিৎসকরা গতকাল জানিয়েছেন, বাদল লিভার ক্যান্সারের চতুর্থ স্তরে আছে। তারা বলেছেন এটা তার শরীরের অনেক অংশে ছড়িয়ে পড়েছে।’

‘ডাক্তাররা তাকে বাসায় পাঠিয়ে দিতে চেয়েছিলেন। আমরা ও তার স্ত্রী-সন্তানরা সম্মিলিতভাবে তাকে হাসপাতালেই রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আজ তার ব্যাপারে পরবর্তী সিদ্ধান্ত হবে। চেষ্টা করছি তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়ার।’

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন-বাফুফে নির্বাচনে সভাপতি পদে লড়াইয়ের জন্য মনোনয়ন কিনেছিলেন বাদল রায়। তবে পরবর্তীতে শারীরিক অসুস্থতার কারণে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান তিনি। বাদল রায় ১৯৮১ থেকে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত জাতীয় দলে খেলেন, আর মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে খেলেন ১৯৭৭ থেকে ১৯৮৯ সাল পর্যন্ত। ২০০৯ সালে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাওয়া বাদল বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ) সহ-সভাপতির দায়িত্বেও ছিলেন।