শুক্রবার ২২ জানুয়ারী ২০২১
  • প্রচ্ছদ » sub lead 3 » আগের ওসির সময় দিনে হামলা,নতুন ওসি সময় রাতে হামলা!


আগের ওসির সময় দিনে হামলা,নতুন ওসি সময় রাতে হামলা!


আমাদের কুমিল্লা .কম :
07.12.2020

স্টাফ রিপোর্টার।।
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে কেন্দ্রে ভোটারদের আসতে উদ্বুদ্ধ করতে প্রশাসনের প্রতি আহবান জানিয়েছেন স্বতস্ত্র প্রার্থী মো. আবু জাহের। কার্যালয়ে হামলা, ভাংচুর ও আনারস প্রতীকের নেতাকর্মীদের মারধর এবং হুমকির প্রতিবাদে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন তিনি এই দাবি জানান।
সোমবার কুমিল্লা নগরীর বাগিচাগাঁও বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব অভিযোগ করেন ।
লিখিত বক্তব্যে আবু জাহের বলেন, উপজেলার মধ্যে ২৪টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ, ওই কেন্দ্রগুলো প্রতিপক্ষ নৌকার প্রতীকের প্রার্থী দখলের ঘোষণা দিয়েছে। এছাড়া উপ-নির্বাচনের দিন বহিরাগত লোকজন প্রবেশ করে ব্যালট ছিনতাইসহ আনারস মার্কার নেতাকর্মীদের মারধরের ঘোষণা দেয়। এনিয়ে এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। ভোটাররা কেন্দ্রে আসলে আনারসের বিজয় নিশ্চিত। কেন্দ্রে ভোটারদের আসতে উদ্বুদ্ধ করতে প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানাই। তারা যেন এনিয়ে মাইকিং করে ভোটারদের উৎসাহ দেয়। নির্বাচনী এলাকার প্রবেশ পথে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চেকপোস্টেরও দাবি করেন তিনি।
তিনি আরো বলেন, আজকের দিন পর্যন্ত আনারস মার্কার সমর্থক ২৪ জন নেতাকর্মীর উপর হামলা হয়েছে। এর মধ্যে ১৩ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। ভাংচুর করা হয়েছে চারটি গাড়ি, রোববার রাতে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে একটি নির্বাচনী অফিস। এখন পর্যন্ত স্থানীয় প্রশাসনের উপর আমার আস্থা রয়েছে। আগের ওসির সময় আমার কর্মীদের উপর দিনে হামলা হতো,নতুন ওসি আসার পর রাতে হামলা হচ্ছে। প্রশাসন আরো আন্তরিক হলে এই হামলা বন্ধ হবে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সাবেক চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন, মো জালাল উদ্দীন, জাকির হোসেনসহ আরো অনেকে।
নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী বলেন,তারা আমাদের অফিস ভাংচুর করেছে। এখন উল্টো অভিযোগ দিচ্ছে। তাদের সব অভিযোগ ভিত্তিহীন।
ব্রাহ্মণপাড়া থানার ওসি কাজী এনামুল হক বলেন, দুই পক্ষ থেকেই মৌখিক অভিযোগ আসছে। আমরা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করছি।
উল্লেখ্য, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু তাহেরের মৃত্যুতে এ পদটি শূন্য হয়। আগামী ১০ ডিসেম্বর এ পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।