রবিবার ২৪ জানুয়ারী ২০২১


লাকসামে দুই পক্ষের বিরোধ মেটাতে গিয়ে সমাজপতি নিহত


আমাদের কুমিল্লা .কম :
12.12.2020

লাকসাম প্রতিনিধি ।।

লাকসামে পৈতৃক সম্পত্তি নিয়ে ভাই-বোনের বিরোধ মিটাতে গিয়ে মো. মফিজুর রহমান (৬৫) নামে এক সমাজপতি খুন হয়েছেন। এই ঘটনায় শনিবার লাকসাম থানা পুলিশ দুই নারীসহ ৫ জনকে গ্রেপ্তার এবং ওই বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার করে কুমিল্লা মর্গে পাঠিয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার মুদাফরগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নের নোয়াপাড়া বেপারী বাড়ীতে এই ঘটনা ঘটে। নিহত মফিজুর রহমান ওই গ্রামের মৃত ফজলে আলীর ছেলে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ওই গ্রামের মৃত সালামত উল্লাহর ছেলে রফিকুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান ও তাদের বোন ফাতেমা বেগম ও পারভীন বেগমের পৈতৃক সম্পত্তির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। বিরোধের জায়গায় বেড়া দেওয়াকে কেন্দ্র করে ওইদিন বিকেলে তাদের মধ্যে পুনরায় ঝগড়া-বিবাদ হয়। সন্ধ্যায় মাগরিবের নামাজ পড়তে যাওয়া এলাকার সর্দার মো. মফিজুর রহমানকে মীমাংসার জন্য বিরোধের জায়গায় নিয়ে যায় ফাতেমা ও ঝর্না বেগম। এ সময় সর্দার মফিজুর রহমান বিরোধের জায়গায় রফিকুল ও বোনদের দেয়া বেড়া তুলে ফেলতে বলে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ফাতেমা বেগম, তার ছেলে ফারুক, ঝর্না বেগম, তার ছেলে রুবেল ও পারভেজ ওই সর্দারকে বেধড়ক মারধর করে। পরে স্থানীয় মেম্বার সাইফুল ইসলাম চৌধুরীসহ গ্রামের লোকজন মফিজুর রহমানকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।
এদিকে ঘটনার পর পর স্থানীয় লোকজন রফিকুল ইসলামের ৩ ভাগিনা ফারুক, রুবেল, পারভেজ ও ২ বোন ফাতেমা ও ঝর্না বেগমকে আটক করে পুলিশকে সোপর্দ করে।
লাকসাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নিজাম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের ভাই বুজরত আলী বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। গ্রেপ্তারকৃতদের কুমিল্লা আদালতে চালান করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে।