শনিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২১


গণশুনানিতে আধুনিক টাউন হলের দাবি


আমাদের কুমিল্লা .কম :
19.12.2020

মাহফুজ নান্টু।।
নগরীর প্রাণকেন্দ্রের পুরনো টাউন হল ভেঙে নতুন আধুনিক টাউনহল করার দাবিতে গনশুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার অনুষ্ঠিত গণশুনানিতে কুমিল্লার সর্বস্তরের সাধারণ মানুষজন উপস্থিত ছিলেন। গণশুনানিতে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃত মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবদুল মান্নান ইলিয়াস। সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর।
সোমবার গণশুনানির আগে নগরীর কান্দিরপাড় থেকে একটি দীর্ঘ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। বেলা ১২ টায় নগরীর টাউন হল মাঠের রফিকুল ইসলাম মুক্তমঞ্চে বীরচন্দ্র গণপাঠাগার ও টাউনহল পুরাকীর্তি হবে কি হবে না গণশুনানির আলোচনা অংশে আধুনিক টাউন হল নির্মাণের পক্ষে বক্তব্য রাখেন সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কু, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর রুহুল আমিন ভূঁইয়া, সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর জামাল নাসের,বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজমুল হাসান পাখি, কুমিল্লা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল হাসানাত বাবুল, কুমিল্লা দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আতিকুল্লাহ খোকন, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জাগ্রত মানবিকতার সাধারণ সম্পাদক তাহ্সিন বাহার সূচনা, কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাতসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ।
গণশুনানিতে কুমিল্লা সদর আসনের সাংসদ বীরমুক্তিযোদ্ধা আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেন, করোনাকালীন সময়েও সারা দেশে রেমিট্যান্সে শ্রেষ্ঠ হয়েছে কুমিল্লা। শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত, শচীন দেব বর্মণের এই জেলায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধুসহ বহু জ্ঞানীগুণীর পদচারণায় ধন্য হয়েছে। তাই বলি, কুমিল্লা এগুলো এগুবে বাংলাদেশ। তিনি আরো বলেন, এখন কুমিল্লার দিকে তাকালেই মনে হয় বঙ্গবন্ধু যে সুখি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ চেয়েছেন, আজ কুমিল্লা থেকেই সেই স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে। কয়েক বছর আগেও যেখানে শাসনগাছা দিয়ে কান্দিরপাড় আসতে দেড় ঘণ্টা লাগতো, এখন মাত্র দুই মিনিটেই চলে আসা যায়।
আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেন, শাসনগাছা রেলওয়ে ফ্লাইওভার আমি করেছি। তার জন্যই এখন দ্রুত নগরীতে প্রবেশ করা যায়। এমন বহু কাজ আমি করেছি। শিক্ষা সংস্কৃতির এই কুমিল্লায় একটি আধুনিক কমপ্লেক্স দরকার। বিভিন্ন দেশ তাদের সংস্কৃতি চর্চায় এগিয়ে গেছে। কুমিল্লার সংস্কৃতি বিকাশে আধুনিক টাউন হল এখন সময়ের দাবি। আমি সেই দাবি বাস্তবায়নে কুমিল্লাবাসীকে নিয়ে এগিয়ে গেছি।
আপনারা লক্ষ্য করবেন ভারতের আগরতলায় নতুন হল ভবন হয়েছে। তাদের কাছে পুরাকীর্তি মনে হয়নি। অথচ ষড়যন্ত্রকারীরা ঠিকই আমার পিছে লেগেছে। কোন বাধাই কাজে আসবে না। তাই আমি বলতে চাই কুমিল্লা টাউন হল আধুনিকায়ন করা হবে। পুরাকীর্তিতে যাওয়ার সুযোগ নেই। আর যে আধুনিক টাউনহল নির্মাণ করা হবে তা আগরতলার মহারাজা বীরচন্দ্র মাণিক্য বাহাদুরের নামেই হবে। তবে পাঠাগারের জায়গায় কমপ্লেক্স হবে।
পরে প্রধান অতিথির বক্তব্য সংস্কৃত মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবদুল মান্নান ইলিয়াস বলেন, সুন্দর সুশৃঙ্খলভাবে গণশুনানি হয়েছে এটা একটা প্রক্রিয়া। আরো আনুষ্ঠানিকতা রয়েছে। সংস্কৃত বিষয়ের মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মহোদয় রয়েছেন। আমরা পরবর্তী কার্যক্রমের দিকে এগিয়ে যাবো।