শুক্রবার ২২ জানুয়ারী ২০২১


চাঁনপুরে শিশুকে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগে এবার আদালতে মামলা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
21.12.2020

আবদুর রহমান।।
কুমিল্লা শহরতলীর ডুমুরিয়া চাঁনপুর গয়ামবাগিচা (বউবাজার) এলাকার কিশোর মো.আরাফাত হোসেনকে (১৪) ডেকে নিয়ে নির্যাতনের পর পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগে ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে হত্যা মামলা হয়েছে। সোমবার ওই কিশোরের পিতা মো.আবদুল বারেক বাদী হয়ে কুমিল্লার আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। আদালত আমলে নিয়ে মামলাটি কোতয়ালী থানা পুলিশকে এফআইআর করার নির্দেশনা দিয়েছেন। এই তথ্য নিশ্চিত কেেরছেন বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো.আবদুল মজিদ খান। এই ঘটনায় এর আগে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ একটি অপমৃত্যুর মামলা নিয়েছিলো। এনিয়ে আপত্তি তুলেছিলেন নিহতের পিতা।
মামলার আসামিরা হলেন- একই এলাকার জাকির হোসেনের ছেলে ইয়াছিন ওরফে সেলু, সেন্টু মিয়ার ছেলে সাকিব, ইসমাইলের ছেলে শ্রাবণ, শাহজাহানের ছেলে বাবু ওরফে স্টিক বাবু, নজরুল ইসলামের ছেলে অন্তর এবং ওই লেপ তোশকের গোডাউনের মালিক এরশাদ মিয়া।
উল্লেখ্য-গত ১৫ ডিসেম্বর দুপুরে বউবাজার এলাকায় একটি লেপ তোশকের গোডাউনে আগুনে পুড়ে মারা যায় কিশোর আরাফাত। এ ঘটনার পরদিন ১৬ ডিসেম্বর রাতে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানা একটি অপমৃত্যুর মামলা নেয় পুলিশ। যদিও ঘটনার শুরু থেকেই ওই কিশোরের পরিবারের দাবি ছিলো, মাদক সেবনে বাধা দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে আরাফাতকে।
মামলায় আবদুল বারেক দাবি করেন, আসামিরা এলাকার বখাটে ও মাদকসেবী। তারা এলাকায় মাদক ব্যবসাও করে। তার ছেলে আসামিদের মাদক সেবন ও ব্যবসায় বাধা দিয়েছেন। এছাড়া একটি মোবাইলফোন নিয়ে তাদের সঙ্গে নিহত আরাফাতের বিরোধ ছিলো। এসব বিরোধের জেরে আসামিরা তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। তারা প্রথমে আরাফাতের উপর নির্যাতন করে। এরপর আগুনে পুড়িয়ে তাকে হত্যা করে। তিনি আসামিদের কঠোর শাস্তির দাবি জানান।
এ প্রসঙ্গে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.আনোয়ারুল হক বলেন, আদালতে মামলা হওয়ার বিষয়টি শুনেছি, তবে এখনো আদেশের কপি হাতে পাইনি। আদেশের কপি হাতে পেলে আদালতের নির্দেশনা মতো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।