শুক্রবার ২২ জানুয়ারী ২০২১
  • প্রচ্ছদ » sub lead 2 » যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নিখিলের গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় যুবলীগ কর্মী গ্রেফতার


যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নিখিলের গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় যুবলীগ কর্মী গ্রেফতার


আমাদের কুমিল্লা .কম :
25.12.2020

মোর্শেদুল ইসলাম শাজু, হোমনা ।।
কুমিল্লার হোমনা উপজেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন থেকে ঢাকায় ফেরার পথে কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন নিখিলের গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় মনির হোসেন নামের যুবলীগের একজন কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। হামলার ঘটনায় নব নির্বাচিত সভাপতি খন্দকার নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক কায়সার বেপারীর নেতৃত্বে যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপজেলা সদরে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, গত মঙ্গলবার হোমনা উপজেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই দিনগত রাতে সম্মেলন পরবর্তী দ্বিতীয় পর্ব কাউন্সিলের মাধ্যমে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল ইসলাম নিখিলসহ অতিথিরা ঢাকায় ফেরার পথে এই হামলার শিকার হন। কাউন্সিলে খন্দকার নজরুল বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় সভাপতি ও বিপুল ভোটে সাধারণ সম্পাদক পদে কায়সার বেপারী নির্বাচিত হয়। পরাজিত সাধারণ সম্পদক প্রার্থী শাহ আজম বিটুর কর্মী-সমর্থকরা ঢাকার অতিথিদের গাড়িবহরে হামলা করে। এসময় নব নির্বাচিত সভাপতি খন্দকার নজরুল ইসলামের একটি নতুন মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো- ১৯-৪৬১০) ভাঙচুর হয়। এতে সভাপতি খন্দকার নজরুল ইসলামসহ অন্তত আরও ১২ জন আহত হয়েছেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় সালাহ উদ্দিন (২০) ও আবদুর রহমান বাবুল (৪০) নামে দুইজনকে ঢাকায় রেফার করা হয়েছে। অন্য আহতরা হলেন- রেজাউল করিম, রাসেল, মাহমুদ, বাপ্পি, জনি, শাকিল, মো. ফরিদ, মামুন, শরীফ।
নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ও বাদি কায়সার বেপারী বলেন, ‘শাহ আজম বিটু কাউন্সিলে আমার সঙ্গে হেরে গিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের গাড়িবহরে হামলা করেছে। নবনির্বাচিত সভাপতি খন্দকার নজরুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন আহত হন।”
এদিকে শাহ আজম বিটুর নাম্বারে একাধিকবার চেষ্টা করেও সংযোগ না পাওয়ায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কায়েস আকন্দ বলেন, উপজেলা যুবলীগের নব নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক কায়সার বেপারী বাদী হয়ে বুধবার সন্ধ্যায় হোমনা থানায় একটি মামলা করেছেন। এতে যুবলীগ নেতা শাহ আজম বিটু, পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদি হাসান ও ছাত্রলীগ নেতা কামরুলসহ ৩০ জনের নামে এবং আরও ৪০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে। মনির হোসেন মাস্টার নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।