সোমবার ৮ gvP© ২০২১


আমার বাবা কবরে-খুনি বাবুল বাইরে কেন?


আমাদের কুমিল্লা .কম :
24.01.2021

স্টাফ রিপোর্টার।।
বরুড়ায় খুন হওয়া নৈশপ্রহরী আবুল হাশেম হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে আবুল হাশেমের সাত মেয়েসহ ইউনিয়নবাসী। খুনি বাবুলের ফাঁসি চাই, ফাঁসি চাই, ফাঁসি চাই, আমার বাবা কবরে- খুনি বাবুল বাইরে, প্রশাসন জবাব চাই, এভাবেই কান্না জড়িত কণ্ঠে স্লোগান দিচ্ছিল খুন হওয়া আবুল হাশেমের সাতমেয়ে, ভাতিজা, ভাগিনা ও ইউনিয়নবাসী। এলাকার নলুয়া চাঁদপুর থেকে লক্ষ্মীপুর ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত মিছিল নিয়ে যায় ইউনিয়নবাসীসহ হাশেমের মেয়েরা। পরে তারা ইউনিয়ন পরিষদের সামনে সবাই একত্রিত হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মৃত হাসেমের মেয়েরা, ভাগ্নে জহিরুল ইসলাম ও ইউনিয়নবাসী। প্রত্যেকেই প্রধানমন্ত্রীর কাছে খুনি বাবুল মিয়ার ফাঁসি দাবি জানান।
ভাগ্নে জহিরুল ইসলাম বলেন, মামার জন্য এভাবে রাস্তায় বসে কাঁদতে হবে, কখনোই ভাবিনি। মামার হত্যাকারী বাবুল মিয়া দেশের যেখানেই থাকুক তার শাস্তির দাবি করেন ভাগ্নে জহিরুল ইসলাম।
উল্ল্যেখ্য, কুমিল্লার বরুড়ার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নে রাতের আঁধারে আগুন পোহানোকে কেন্দ্র করে একই বাজারের এক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে এক নৈশপ্রহরীকে হত্যার অভিযোগ ওঠে। নিহত আবুল হাসেম (৬০) এলাকার নলুয়া চাঁদপুর গ্রামের দোকানি বাড়ির হাসন আলীর ছেলে।
প্রত্যক্ষদর্শী, নিহতের স্বজন এবং পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নিহত আবুল হাসেম এলাকার নলুয়া চাঁদপুর বাস স্ট্যান্ড বাজারে বহুদিন যাবত নাইট গার্ডের কাজ করে আসছিলেন। কিছু দিন আগে এলাকার ও স্থানীয় বাজারের রাইস মিল ব্যবসায়ী বাবুল হোসেন (৫০) নামের এক ব্যক্তির সাথে হাশেমের কথা কাটাকাটি হয়। বাবুল মিয়া বহুবার নৈশপ্রহরী আবুল হাশেমকে হুমকি দেয়।
নৈশপ্রহরী মো. আবুল হাসেম এবং মো. সুরুজ মিয়া বৃহস্পতিবার দিবাগত গভীর রাতে ওই বাজারে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে শীতের প্রকোপ থেকে একটু ঊষ্ণতার প্রাপ্তির লক্ষ্যে আগুন পোহাচ্ছিলেন। রাত প্রায় ২টার সময় বাজারে আসেন ব্যবসায়ী বাবুল মিয়া। এসে বাবুল মিয়াও আগুন পোহাতে ছিলেন।এ সময় এত রাতে বাস স্ট্যান্ডে আসার কারণ জানতে চাইলে বাবুল হোসেন নাইট গার্ড আবুল হাশেমের ওপর ক্ষিপ্ত হন। এক পর্যায়ে বাবুল মিয়া আবুল হাশেমের বুকে সজোরে কিল ঘুষি মারতে থাকলে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন আবুল হাসেম। এসময় আহতের এবং অপর প্রহরী সুরুজ মিয়ার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে বাবুল হোসেন পালিয়ে যায়। আহত আবুল হাসেমকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে মুদাফফরগঞ্জ হেল্থ কেয়ার নামক একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বরুড়া থানা অফিসার ইনচার্জ মো. ইকবাল বাহার মজুমদার জানান, মামলাটি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এছাড়া নিহতের ময়না তদন্ত রিপোর্ট আসার পর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।