শুক্রবার ১৬ GwcÖj ২০২১
  • প্রচ্ছদ » sub lead 2 » দেবিদ্বার ও চৌদ্দগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় চারজনের মৃত্যু


দেবিদ্বার ও চৌদ্দগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় চারজনের মৃত্যু


আমাদের কুমিল্লা .কম :
04.03.2021

দেবিদ্বার ও চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি।।
পৃথক তিনটি সড়ক দুর্ঘটনায় কুমিল্লায় চারজনের মৃত্যু হয়েছে। কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় মাছ বোঝাই পিকআপে থাকা দুই ব্যক্তি নিহত হন। নিহতরা হলেন, পিকআপের হেলপার রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের হামিদ আলীর পুত্র ফয়সাল(২০) ও মাছ বহন সহযোগী একই গ্রামের আবদুস সাত্তারের পুত্র হাবিবুর রহমান(৩৮)। কুমিল্লার দেবিদ্বারে ইজিবাইক চালাতে গিয়ে মৃত্যু হয় সিফাত নামে ছয় বছরের এক শিশুর। সিফাত ব্রাক্ষণপাড়া উপজেলার অলুয়া গ্রামের মো. ইমন মিয়ার পুত্র। বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের লক্ষ¥ীপুর নামক স্থানে প্রান্তিক পরিবহনের একটি বাস ও সিএনজি চালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে আরিয়ান হোসেন (৬) এবং তার বাবা আক্তার হোসেন (৪০) গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আরিয়ান হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন। তারা উপজেলার জাফরগঞ্জ ইউনিয়নের চরবাকর গ্রামের বাসিন্দা। চৌদ্দগ্রামের মিয়াবাজার হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আইয়ুব হোসেন ও দেবিদ্বার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মেজবাহ উদ্দিন তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।
বুধবার দিবাগত রাত দেড়টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বাতিসা এলাকায় চট্টগ্রামমুখী মাছ বোঝাই একটি পিকআপ দাঁড়িয়ে থাকা অপর একটি গাড়িকে ধাক্কা দেয়। এতে পিকআপের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলে পিকআপের সামনে থাকা হেলপার ফয়সাল ও পিছনে থাকা মাছ বহন সহযোগী হাবিবুর রহমান নিহত হন। তবে পালিয়ে যায় পিকআপের চালক। খবর পেয়ে মিয়াবাজার হ্ইাওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা লাশ ও দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি উদ্ধার শেষে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়।
এদিকে কুমিল্লার দেবিদ্বারে খেলাচ্ছলে ইজিবাইক চালাতে গিয়ে সিফাত নামে ৬ বছরের এক শিশুর মৃত্যু হয়। এ সময় নিহত শিশুরটি নানি পারভীন আক্তার (৪০) তাকে রক্ষা করতে গিয়ে মারাত্মক আহত হন। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার সুবিল ইউনিয়নের রাঘবপুর গ্রামের লোহারপুল এলাকায় ওই দুর্ঘটনাটি ঘটে। দুর্ঘটনা কবলিত ওই ইজিবাইক চালক লোহারপুল এলাকায় ইজিবাইক স্ট্যান্ডে দুইজন যাত্রীসহ বাইকটি রেখে চা খেতে পাশ^বর্তী দোকানে যান। এসময় গাড়ির চালককে ফাঁকি দিয়ে শিশুটি গাড়িতে চড়ে ড্রাইভার পজিশনে এস্কেলেটরে মোচড় দিলে গাড়িটি দ্রুত গতিতে চলতে শুরু করে। তখন শিশুটি ভয় পেয়ে চিৎকার শুরু করলে তার নানি দৌড়ে গাড়িটির সামনে এসে গাড়িটি থামানোর চেষ্টা করে। ইজিবাইকটি শিশু সিফাত, দুজন যাত্রী ও সিফাতের নানিসহ পাশর্^বর্তী খালে পড়ে যায়। এই দুর্ঘটনায় শিশুটি ঘটনাস্থলে মারা যায় এবং তার নানি গুরুতর আহত হন। নিহত শিশুটি নানা মো. সফিক মিয়ার রাঘবপুর গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল।