শুক্রবার ১৬ GwcÖj ২০২১


সাত নং ওয়ার্ডকে মাদকমুক্ত মডেল ওয়ার্ড করতে চান ইসমাইল হোসেন


আমাদের কুমিল্লা .কম :
12.03.2021

আবদুল্লাহ আল মারুফ।।

আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পরিবর্তনের অঙ্গীকার নিয়ে বরুড়ার লক্ষীপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন সম্ভাব্য মেম্বার পদ প্রার্থী ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন।

আওয়ামী লীগ এর সভাপতি ও মেম্বার পদপার্থী হিসেবে মনোনয়ন প্রত্যাশি ব্যক্তি ও পারিবারিক ইমেজ ও দলের নিবেদিত একজন সক্রিয় কর্মী হিসেবে তার বেশ পরিচিতি রয়েছে। তাই দল থেকে তাকে মনোনয়ন দিলে সহজে জয় পাবার আশা করছেন নবীন-প্রবীণ ভোটাররা। জানা গেছে, তার রাজনৈতিক কর্মকান্ড ও তৎপরতার মধ্যে দিয়ে ছাত্র সমাজে নিজের আসন পাকাপোক্ত করে নিয়েছেন। তার রাজনৈতিক মেধা, প্রজ্ঞা ও নিরলস শ্রমের মাধ্যমে তৃণমূলের মধ্যে একটি শক্ত ভীত গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন ইসমাইল হোসেন। জনগণের প্রতিনিধি হিসেবে জনগণের সেবামূলক কর্মকান্ডসহ নানা সমাজ-সংস্কারমূলক কর্মকান্ড করেছেন যা ওয়ার্ডের মানুষই সাক্ষ্য দেয়। অনুরূপভাবে ২০০১ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসেবে জনগণের সেবাসহ বহু সামাজিক, শিক্ষা ও ধর্মীয় কর্মকান্ডে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেন। জ্ঞানী-গুণী ব্যক্তিত্বের সাথে তার সম্পর্ক বিদ্যমান। তাই লক্ষীপুরের সাত নং ওয়ার্ড বাসীর হৃদয়ের মণিকোঠায় উচ্চাসনে স্থান করে নিতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। রাজনীতির প্রতিটি শাখায় তার সরব উপস্থিতি সকলের দৃষ্টি কেড়েছে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে, মুক্তিযুদ্ধ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে লালন করে যুবসমাজকে সু-সংগঠিত করতে তার প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন। তারই ধারাবাহিকতায় রাজনীতিতে তার ভূমিকা রাখতে বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ও দেশরত্ব শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কর্মসূচিকে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি ও মেম্বার পদপ্রার্থী ইসমাইল হোসেন জানান, দীর্ঘদিন ধরে আমি মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। মানুষের ভালোবাসার কারণেই এর আগে আমি আরও একবার বিজয়ী হয়েছি। গরিব মানুষেরা, বিশেষ করে আমার এলাকার হত দরিদ্র মানুষেরা আমাকে তাদের প্রকৃত বন্ধু মনে করেন’। এ ৭ নং ওয়ার্ডের জনগণ ও সব এলাকার উন্নয়ন করাই আমার দ্বায়িত্ব মনে করেছি। এবারও মানুষ আমাকে আবার দায়িত্ব দেবে সেটা আমি বিশ্বাস করি। আমি ৭ নং ওয়ার্ডকে তৃতীয় শ্রেণি থেকে প্রথম শ্রেণিতে উন্নীত করেছি আগেরবার নির্বাচিত হওয়ার পর। এলাকার বেশ প্রায় সকল বাড়ির রাএবা করেছি এলাকায় শতভাগ নিরাপদ সেনিটাইজেশন ব্যবস্থা করেছি। স্থান দেখিয়ে দেখিয়ে বলেন, আমার এলাকার এই সকল কালবার্ট আমার সময় করেছি। আমি এলাকার বেকার যুবকদের কাজে লাগিয়ে এলাকার সকল খাল খনন করিয়েছিলাম যাতে কৃষকরা সেচের পানি পেতে পারে। এই ছাড়াও গরিব অসহায় মানুষের যেকোনো সমস্যা যেকোন সময় নিজের স্বইচ্ছায় করেছি যা মানুষ ভুলেনি। এই কারনেই মেম্বার না থাকলেও মানুষ আমাকে প্রচন্ড ভালোবাসে। এবারের ইউপি নির্বানে নির্বাচিত হয়ে আমি এই ওয়ার্ডকে মাদকমুক্ত মডেল ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলতে চাই’।