শনিবার ১৮ †m‡Þ¤^i ২০২১
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » শরীর ম্যাসাজের পর ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয় দেলোয়ারকে


শরীর ম্যাসাজের পর ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয় দেলোয়ারকে


আমাদের কুমিল্লা .কম :
22.08.2021

কুমিল্লা প্রতিনিধি
পাওনা টাকা পরিশোধ না করায় সেলুনে শরীর মেসেজের পর ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয় দেলোয়ার নামে এক ভাঙ্গারী ব্যবসায়ীকে। কুমিল্লার ময়নামতি এলাকায় দেলোয়ারকে হত্যার ঘটনায় সেলুনের মালিক লহ্মণ চন্দ্র শীলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। রোববার জেলার মনোহরগঞ্জ উপজেলার চিতোষী এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পিবিআই কুমিল্লা বোরবার সন্ধ্যায় এতথ্য নিশ্চিত করেছে। লহ্মণ চন্দ্র শীল আদর্শ সদর উপজেলার আমতলী এলাকার সুধীর চন্দ্র শীলের ছেলে।
পিবিআই কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিউদ্দিন মাহমুদ সোহেল বলেন, ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেনের নিকট সেলুনের মালিক লহ্মণ চন্দ্র ৩ লাখ টাকা পেতে। কিন্তু টাকা পরিশোধ করতে দেলোয়ার বিলম্ব করায় এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে টানাপোড়েন চলছিল। ঘটনার রাতে দেলোয়ার সেলুনে আসলে তার শরীর প্রায় এক ঘন্টা যাবৎ ম্যাসাজ করা হয়। এক পর্যায়ে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যার পর পা কেটে বস্তা ভরা হয়। বস্তা সেলুনে ফেলে রাখা হয়।
ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘রোববার মনোহরগঞ্জ থেকে সেলুনের মালিক লহ্মণ চন্দ্র শীলকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাকে নিয়ে ঘটনাস্থল ও তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক বাড়ির অদূরে মাটির নিচ থেকে দেলোয়োরের একটি মোবাইল সেট উদ্ধার করা হয়। সোমবার আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দীর জন্য গ্রেফতার সেলুনের মালিক লহ্মণ চন্দ্রকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।’
উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে ময়নামতি টিপরা বাজার আজাদ মার্কেটের লক্ষণ হেয়ার কাটিং নামে এক সেলুনে কুপিয়ে হত্যা করা হয় ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেনকে। পর দিন শুক্রবার রাতে সেলুনে রাখা একটি বস্তা থেকে ওই ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত দেলোয়ার হোসেন (২৮) ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল এলাকার জাহের আলীর ছেলে। তিনি জেলার বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়নের ফরিজপুর এলাকায় ভাড়া থাকতেন। এদিকে ওই ঘটনার পর থেকে সেলুন মালিক লক্ষণ চন্দ্র শীল পলাতক ছিল।