বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১
Space Advertisement
Space For advertisement
  • প্রচ্ছদ » sub lead 2 » এখনও চলছে ওরিয়নের শাকিলের হজ নিয়ে প্রতারণা, কুমিল্লার সাতজনের চরম দুর্ভোগ


এখনও চলছে ওরিয়নের শাকিলের হজ নিয়ে প্রতারণা, কুমিল্লার সাতজনের চরম দুর্ভোগ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
17.08.2018


আবু হানিফ:
প্রতারণা করায় লাইসেন্স বাতিল হওয়ার পরেও হজ নিয়ে প্রতারণা করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে ওরিয়ন এয়ার সার্ভিসের মালিক শাকিল আহমেদের বিরুদ্ধে।
প্রতারিত লোকজন জানান,২০১৭ সালে পবিত্র হজ্ব পালনের জন্য কুমিল্লা মহানগরীর স্টেশন রোড মুন্সি বাড়ির ওরিয়ন এয়ার সার্ভিসের মালিক শাকিল আহমেদের নিকট হজের প্রাক নিবন্ধন করেন সোনালী ব্যাংক কুমিল্লা ষ্টেশন রোড শাখার সাবেক ম্যানেজার মোশাররফ হোসেন চৌধুরী ,তাঁর স্ত্রী আমেনা বেগম ,ছেলে এথনিকা ইংলিশ ভার্সন স্কুলের শিক্ষক এমদাদ হোসেন চৌধুরী, অজিত গুহ কলেজের প্রাক্তন প্রভাষক মোসাদ্দেক হোসেন ,তাঁর স্ত্রী, শহরতলী নোয়াপাড়ার রুপ মিয়া ও তাঁর স্ত্রীসহ মোট ৭জন। তিনি এম আলী ট্রাভেলসের নামে তাদের প্রাক নিবন্ধন করেন। ২০১৭ সালে হজ্বে নিবেন বলে মোশাররফ হোসেন চৌধুরী থেকে বিভিন্ন দফায় ১০ লক্ষ ২০ হাজার, মোসাদ্দেক হোসেন থেকে ৫ লক্ষ ৪০ হাজার, রুপ মিয়া থেকে ৭ লক্ষ ৫০ হাজারসহ মোট ২৩ লক্ষ ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। ২০১৭ সালের হজের শেষ মুহূর্তে এসে শাকিল আহমেদ জানান, চূড়ান্ত নিবন্ধনে আপনাদের নাম আসে নাই, আগামী বছর অবশ্যই আপনারা যেতে পারবেন। ২০১৮ সালে হজের ফøাইট শুরু হলে তাঁর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ৩০ সেপ্টেম্বর আপনাদের হজের ফ্লাইট। তাঁরা হজে যাওয়ার সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করে। ২৮ জুলাই তিনি ফোন করে জানান ফ্লাইট সিডিওল পরিবর্তন হয়েছে ১আগষ্ট আপনাদের ফ্লাইট। ১আগষ্ট সকালে ফোন করে জানায় ৫আগষ্ট আপনাদের ফ্লাইট। ৪ আগষ্ট তাঁরা ফোন করলে বলে ১০ আগষ্ট রাত ১১টায় আপনাদের ফ্লাইট। ১০ তারিখ সকালে তাঁরা বাসা থেকে রওয়ানা হলে তিনি ফোন করে জানান ১৪ আগষ্ট ফ্লাইট। শাকিল আহমেদ বিভিন্ন তারিখ দিয়ে টালবাহানা করায় ভুক্তভোগীরা তাঁর ষ্টেশন রোডের বাসায় অবস্থান নিলে তাঁর ভাই আব্দুল্লাহ ফোন করলে সে কুমিল্লায় আসে। কুমিল্লা এসে তিনি জানান, সাতজনের হজের কোন ভিসা টিকেট কিুছই করে নাই। উপস্থিত লোকজনের অনুরোধে তাঁদের পাসর্পোট ফেরত দেয়। এলাকাবাসী জানায় প্রতি বছর হজে লোক পাঠানোর কথা বলে সে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। প্রতারণার দায়ে তাঁর ওরিয়ন এয়ার সার্ভিস লাইসেন্স বাতিল হয়ে যায়।তাঁর পরও সে হজ্ব নিয়ে প্রতারণা করে যাচ্ছ্ ে। তাঁকে অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন ভূক্তভোগীরা।
কুমিল্লা ষ্টেশন রোড শাখার সাবেক ম্যানেজার মোশাররফ হোসেন চৌধুরী বলেন, ওরিয়ন এয়ার সার্ভিসের মালিক শাকিল আহমেদ একটা প্রতারক। সে আমাদের হজে নেয়ার কথা বলে যে কষ্ট দিয়েছে তা ভাষায় বর্ণনা করা যাবেনা। হজে নেয়ার কথা বলে যে টাকা নিয়েছে তা এখনও ফেরত দেয়নি। সে এখনও হজে নেয়ার নামে মানুষের সাথে প্রতারণা করছে বলে জেনেছি। আমরা টাকা ফেরত চাই।
ওরিয়ন এয়ার সার্ভিসের মালিক শাকিল আহমেদের বক্তব্য নেয়ার জন্য বার বার মোবাইল ফোন নম্বরে চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি।