মঙ্গল্বার ১৫ জুন ২০২১
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » কুমিল্লা নগরীতে সম্পত্তি দখল নিয়ে সন্ত্রাসী হামলা


কুমিল্লা নগরীতে সম্পত্তি দখল নিয়ে সন্ত্রাসী হামলা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
07.05.2021

# বাবাকে রক্ষা করতে গিয়ে আহত হলেন তিন মেয়ে
# মানুষের জায়গা দখল করাই আশিকের কাজ- জম্পি
# আমি হাজী মানুষ কাউকে আক্রমণ করিনি – আশিক

 

আবদুল্লাহ আল মারুফ।।
কুমিল্লা নগরীতে সম্পত্তির দখলের জেরে বাবাসহ ৩ মেয়েকে হামলার অভিযোগ করেছেন সিটি করপোরেশনের ৯ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোহাম্মদ শাহ আলম মজুমদার নামের এক ব্যক্তি।
মোহাম্মদ শাহ আলম মজুমদার জানান, ৫ মে তিনি নিজের ঘর মেরামত করছিলেন । আশিকুর রহমান নামের এক ব্যাক্তি তার ঘর মেরামতকে কেন্দ্র করে তার সাথে বাকবিতণ্ডায় লিপ্ত হয়ে পড়ে। বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে যখন তারা আমার দিকে আক্রমণ করছিল তখন আমার মেয়ে মারজান তা ভিডিও করার চেষ্টা করে। তখন আশিকের সাথে আসা সন্ত্রাসীরা আমার মেয়ের হাত থেকে মোবাইলটি কেড়ে নিয়ে যায়। আমার মেয়ে মোবাইলটি উদ্ধার করতে গেলে সন্ত্রাসীরা আমার মেয়েদের চুল ধরে আশিকুর রহমানের ঘরের দিকে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যায়। পরে আমি ও আমার স্ত্রী আমার মেয়ে সাবিহাসহ তাদের উদ্ধার করতে গেলে তারা আমার মেয়ে আমি ও আমার স্ত্রীকে তাদের বাড়ির ভিতরে আটকে ফেলে।
পরে বাড়ি ভিতরে আমাকে, আমার স্ত্রীকে ও আমার মেয়েদের এলোপাতাড়ি মারধর করে। এক পর্যায়ে তারা চাপাতি দিয়ে কোব দিতে আসলে আমার মেয়ে দৌড়ে এসে সামনে হাত দিলে তার একটি বৃদ্ধাঙ্গুলির ৬০ শতাংশ কেটে যায়। এদিকে সন্ত্রাসীদের লাঠির আঘাতে আমার মেয়ে মারজান অজ্ঞান হয়ে পড়ে। পরে লোকজন আসা শুরু করলে সন্ত্রাসীরা গেট খুলে দিলে আমি, আমার মেয়েরা, স্ত্রীসহ সবাই উদ্ধার হই। সন্ত্রাসীদের আঘাতে আমরা ৫ জন আহত হই। এর মধ্যে মারাত্মক আহত আমার মেয়ে সামিয়া ও মারজান কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছে। এ বিষয়ে আমি ৬ মে বৃহস্পতিবার কুমিল্লা কেতোয়ালী মডেল থানায় একটি অভিযোগপত্র দায়ের করি।
এ বিষয়ে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র জমিরুদ্দিন খান জম্পি বলেন, এই আশিকুর রহমান একজন ভূমিদস্যু। সে অন্য ওয়ার্ড থেকে এসে তরিকুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে শাহ আলমের এই জায়গার ভুয়া কাগজ পত্র দিয়ে দখল করার চেষ্টা করছে। মানুষের জায়গা দখল করাই তার কাজ। সে কাউকে মানে না।

অভিযুক্ত আশিকুর রহমান বলেন, আমার জায়গা এটি । আর আমি হাজী মানুষ কাউকে আক্রমণ করার কোন ইচ্ছা আমার নাই। আমি তাদের কিছুই করিনি।
এ প্রসঙ্গে ুকুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার এসআই সাইদুল জানান, এই বিষয়ে থানায় অভিযোগ এসেছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে। আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি এবং হামলার শিকার হওয়া শাহ আলম এর দুই মেয়েকে হাসপাতালে দেখে এসেছি। সন্ধ্যায় তাদের মীমাংসার জন্য বসার কথা রয়েছে।