মঙ্গল্বার ১৫ জুন ২০২১


কুমিল্লায় গরমে বেড়েছে শরবতের চাহিদা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
24.05.2021

আবদুল্লাহ আল মারুফ।।
নগরীর কান্দিরপাড় পূবালী চত্বরের সামনে দাঁড়িয়ে মধ্যবয়সী স্কুল শিক্ষক রমজান আলী। হাতে কালো ব্যাগ। যাবেন আদালতে। কাজ শেষে ফিরবেন গ্রামের বাড়ি লাকসামে। দাঁড়িয়ে থাকার কারণ জিজ্ঞাসা করলে কাতর স্বরে বলেন, ‘বাবারে গরমে ভীষণ তেষ্টায় (তৃষ্ণায়) বুক ফেটে যাচ্ছে। তাই শরবতের দোকানে দাঁড়িয়েছি ঠাণ্ডা শরবতে তৃষ্ণা মেটাতে।
পাশেই এক রিকশাচালককে দেখা গেল এক ঢোকে বরফ মিশ্রিত শরবত খেয়ে গামছা হাতে মুখের ঘাম মুছতে। সোমবার (২৪ মে) কুমিল্লার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। বিভিন্ন দোকানে লেবু ও আখের শরবত, ঠাণ্ডা লাচ্ছি, ফলের জুস ও ডাবের চাহিদা বেড়েছে।
কয়েকদিন ধরেই কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মৃদু তাপপ্রবাহ চলছে। ফলে জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনে যারা ঘরের বাইরে বের হচ্ছেন প্রখর সূর্যতাপে ও ভ্যাপসা গরমে ঘেমে অস্থির হচ্ছেন তারা। করোনা সংক্রমণের কারণে মুখে মাস্ক পরিধানের ফলে স্বাভাবিকভাবে শ্বাস-প্রশ্বাস গ্রহণে সমস্যার কারণে সহজেই ঘামছেন সবাই।
শরবত ক্রেতা জামাল হোসেন জানান, গ্রাম থেকে এসেছি মেয়েকে নিয়ে। প্রচণ্ড গরম। দম বন্ধ হওয়ার অবস্থা। তার মধ্যে করোনার জন্য মাস্ক লাগিয়ে রাখতে হয় বলে আরও অবস্থা খারাপ। বাবা-মেয়ে শরবত খেলাম দুই গ্লাস। এখন একটু ভালো লাগছে।
কান্দিরপাড়ের লেবুর শরবত বিক্রেতা সজিব বলেন, গত কয়েকদিন ধরে বেচাকেনা খুব ভালো। ট্যাংসহ প্রতি গ্লাস ১০ টাকা, আর শুধু লেবুর সাথে বরফ মেশানো শরবত বিক্রি করি ৫ টাকা। ক্রেতার ভিড় বেশি হওয়ায় ছোট ভাইকে নিয়ে এসেছেন। এক ক্রেতার খাওয়ার পর সে দ্রুত গ্লাস ধুয়ে দিলে আরেক ক্রেতাকে শরবত ঢেলে দেন সজিব।