মঙ্গল্বার ১৫ জুন ২০২১


কুভিকের লোগো বিভ্রান্তি কাটল


আমাদের কুমিল্লা .কম :
30.05.2021

আবদুল্লাহ আল মারুফ।।
সবুজ পাতার রঙ কখনো কালো কখনো নীল, আর একটি মাত্র তারকাকে লেপ্টে বানিয়ে দেয়া হতো মানচিত্রের মতো। এছাড়াও নানাভাবে দীর্ঘদিন ধরেই বিকৃত করা হতো দক্ষিণ বাংলার শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের (কুভিক) লোগো। এভাবে বিশবারের মতো পরিবর্তন হয়েছে কলেজটির লোগো।
কলেজ সূত্রে জানা যায়, পরিচয় বহনকারী এই গুরুত্বপূর্ণ উপাদানকে কখনো সামান্য কখনও সম্পূর্ণ বিকৃতি করে দেশ জুড়ে সমালোচনার মুখে পড়ে কলেজটির ভাবমূর্তি। সর্বশেষ গুগল থেকে বাদ পড়ে কলেজের একমাত্র অ্যাপস ই-বন্ধন। এই সমস্যা সমাধানের জন্য সদ্যবিদায়ী অধ্যক্ষ প্রফেসর রুহুল আমিন ভূইয়ার পরামর্শে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর মো. মোশারফ হোসেন ভূঞার নেতেৃত্বে প্রফেসর মো. আসফাক হোসেন, মোহাম্মদ মঈন উদ্দীন ও কলেজ শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহজাহানকে নিয়ে ৪ সদস্য বিশিষ্ট এক কমিটি গঠন করা হয়।
কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চলতি বছরের ২৯ এপ্রিল এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রকাশ করা হয় কলেজের মূল লোগো ব্যবহারের নির্দেশিকা। ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নির্ধারিত রঙ, বর্ণ বিন্যাস, ইমেজ, টেক্সট ব্যতীত অন্য কোনো প্রকারে এই লোগো ব্যবহার করা যাবে না। কলেজের নামের বামদিকে লোগো ব্যবহার করতে হবে। নির্ধারিত লেগোটি নান্দনিকভাবে ব্যবহার করতে হবে। আরও বলা হয় কেনো ব্যক্তিগত, ব্যবসায়িক, বাণিজ্যিক উদ্দ্যেশ্যে এই লোগো ব্যবহার করা যাবে না।
কলেজ শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর রুহুল আমিন ভূইয়া কলেজের লোগোটি সঠিকভাবে ব্যবহার নির্দেশিকা তৈরির জন্য একটি কমিটি গঠন করার নির্দেশ দেন। তিনি থাকাবস্থায়ই আমরা এটির নির্দেশিকা তৈরি করি। এখন শিল্পী হাশেম খানের তৈরি মূল লোগোই আমরা উইকিপিডিয়ায় দিয়েছি। এছাড়াও কলেজের প্রত্যেক বিভাগে এটির সফ্ট কপি পাঠিয়ে দিয়েছি।
কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. আবু জাফর খান বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই প্রাচীন এই কলেজের লোগো নিয়ে বিভ্রান্তি ছিল। বর্তমানে আমরা নির্দেশনা দিয়ে দিয়েছি। আশা করি আর বিভ্রান্তি থাকবে না।