শনিবার ২৫ †m‡Þ¤^i ২০২১
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » কথা কাটাকাটি নিয়ে বুড়িচংয়ে গোষ্ঠিসুদ্ধ হামলার অভিযোগ


কথা কাটাকাটি নিয়ে বুড়িচংয়ে গোষ্ঠিসুদ্ধ হামলার অভিযোগ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
04.06.2021

স্টাফ রিপোর্টার।।
কথা কাটাকাটি নিয়ে এক গোষ্ঠির উপর আরেক গোষ্ঠির হামলা অভিযোগ করেছে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার সদর ইউনিয়নের বাসিন্দা মো: সুরোজ মিয়া(৬০)।
তিনি বলেন,(০২ জুন) বুধবার তার ছেলে সৌরভের সাথে একই ইউনিয়নের জগৎপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেন ভূইয়ার সাথে কথাকাটাকাটি হয়। পরে বাজারের লোকেরা ঝামেলা মিটিয়ে দিলে সৌরভ বাড়ি চলে আসে। আমরা ভেবেছিলাম ঝামেলা শেষ হয়েগেছে। কিন্তু তারা ছোট ছেলেপেলেদের এই ঝামেলাকে বংশীয় পর্যায়ে নিয়েগেছে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে আমরা খেয়েদেয়ে বিশ্রামের জন্য সবার ঘরে অবস্থান করছি। ঠিক সেই সময় আমার বাড়িতে ১৫ থেকে ২০ জন সন্ত্রাসী হামলা করে। যেই হামলায় আমার চার ছেলে সহ পুরো পরিবার আজ হাসপাতালে। ওরা প্রভাব খাটিয়ে আমাদের সদর হাসপাতালে ভর্তিও হতে দেয়নি পরে আমি কুমিল্লার মীম হাসপাতালে তাদের নিয়ে যাই। তারা আমার ঘরবাড়িও কুপিয়েছে। তারা আমার ১২ বছরের নাতী নাতনীদের গায়েও হাত তোলে।
তিনি জানান, হামলার নেতৃত্ব দেয় সদর ইউনিয়ন পরিষদের রফিকুল ইসলাম ভূইয়া, বি আর ডি বি চেয়ারম্যান শরীফুল ইসলাম ভূইয়া, ফার্মেসিস্ট ও রাজনীতিবীদ ইমতিয়াজ আহমেদ ইমন ভূইয়া ও ব্যবসায়ী আইয়ুব আলী মেম্বার।
আহত মো: জাকির হোসেন বলেন, বুড়িচং এর ইতিহাসে এমন জঘন্য হামলা আর কেউ দেখেনি। যেখানে আমার ১০/১২ বছরের মেয়ে ও ভাতিজীদের পর্যন্ত আঘাত করে। এলাকায় দীর্ঘ সময় ধরে তারা এই সন্ত্রাসী বাহিনী লালন-পালন করে আসছে। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার থেকে শুরু করে এলাকায় চুরি, ছিনতাই, চাদাবাজীসহ সকল অনৈতিক কাজ এই সন্ত্রাসী বাহিনী লেলিয়ে দিয়ে সম্পূর্ণ করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। এরা সবাই ভাল মানুষের মুখোশ ধরে এলাকায় এসব জঘন্য কাজ করে আসছে। আমরা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।
সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো: শাহ আলম বলেন, আগে থেকেই এই এলাকায় গোষ্ঠি প্রথা আছে। শুনেছি দুই বন্ধুর মধ্যে ঝামেলা হয়েছে। পরে এটা গোষ্ঠিগত কারণে বড় আকার ধারণ করে।
অভিযুক্ত ফার্মেসিস্ট ও রাজনীতিবীদ ইমতিয়াজ আহমেদ ইমন ভূইয়াকে একাধিকবার কল দিয়েলেও এই সংবাদ লেখার আগ পর্যন্ত কোন প্রতিউত্তর আসেনি।
বুড়িচং থানার ওসি মোজাম্মেল হক জানান, ঘটনার বিষয়ে আমি শুনেছি। এখনও কোন অভিযোগ আসেনি অভিযোগ আসলে অবশ্যই আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।