শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
Space Advertisement
Space For advertisement


অভিনব কায়দায় চুরি


আমাদের কুমিল্লা .কম :
04.09.2021

স্টাফ রিপোর্টার।।
প্রেম করে বিয়ে করে বাসা ভাড়া নেন এক যুবক। তারপর সংসার চালাতে না পেরে ফেসবুকে ভুয়া বিজ্ঞাপন দিয়ে মোটরবাইক চুরি করেন তিনি। এ অপরাধে ওই যুবককে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতার যুবক মেরাজ হোসেন সাকিব (২২)। তার বাড়ি নোয়াখালী জেলার চরজব্বার থানার হাজীপুর গ্রামের বাসিন্দা। শনিবার দুপুরে গ্রেফতার মেরাজকে আদালতে নিলে বিচারক তাকে কারাগারে প্রেরণ করেন।

মামলার সূত্রে জানা যায়, ফেসবুকে একটি আর-১৫ মোটরবাইক বিক্রয় করার বিজ্ঞাপন দেন চুয়েটের ছাত্র আব্দুল্লাহ আল নোমান। গত ২৯ আগস্ট সন্ধ্যায় নোয়াখালী থেকে কুমিল্লায় বাইকটি কিনতে আসেন মেহেরাজ হোসেন সাকিব। পথে রেন্টে-কার থেকে একটি প্রাইভেট কার ভাড়া নেন মেরাজ। চালকসহ মেরাজ আসেন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার আলেখারচরস্থ মিয়ামি হোটেলের সামনে। সেখান এসে প্রাইভেটকার থামিয়ে বাইকটি চালিয়ে দেখার জন্য র্স্টাট দিয়ে সামনে এগিয়ে যান। তারপর আর ফিরে আসেননি মেরাজ। এদিকে মোটর বাইক মালিক আব্দুল্লাহ আল নোমান মোটর বাইক ফিরে না পেয়ে প্রাইভেটকার চালকসহ প্রাইভেটকারে থাকা আরো একজনকে আটক করে। পরে প্রাইভেটকার চালক ও তার সঙ্গী জানান, মেরাজকে তারা চিনেন না। ভাড়ার কথা বলে নিয়ে এসেছেন। এনেই তাদেরকে বিপদে ফেলে রেখে চলে যান।

পরে এ বিষয়ে ভুক্তভোগী আব্দুল্লাহ আল নোমান শুক্রবার বিকেল ৪ টায় কুমিল্লা কোতয়ালি মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে নোয়াখালীর সুধারামপুর থানার মাইজদী কোর্ট এলাকার একটি ভাড়াটিয়া বাসা থেকে আর ১৫ মোটর বাইকটিসহ গ্রেফতার করে।

গ্রেফতার যুবক মেরাজ প্রাথমিক বিজ্ঞাসাবাদে জানান, সে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে ওয়েবসাইটে মোটর বাইক বিজ্ঞাপন দেখে যোগাযোগ করতো। তারপর বিভিন্ন কৌশলে বাইক চুরি করে নিয়ে আসতো। এখাবে এখন পর্যন্ত অন্তত ৪ টি বাইক চুরি করে।

কেন বাইক চুরি করতো এ ঘটনা বর্ণনা দেন মেরাজ। ফেসবুকে একটি মেয়ের সাথে এক বছরে প্রেম ছিলো। গত সাত মাস আগে দুই পরিবারের অমতে বিয়ে করেন। বাসা ভাড়া নিয়ে সংসার শুরু করেন। একদিকে বেকার, অন্য দিকে সংসার খরচ। সংসার খরচ মেটাতে গিয়ে অপরাধ জগতে পা বাড়ান মেরাজ।

কুমিল্লা গোয়েন্দা পুলিশের উপপরিদর্শক পরিমল দাশ জানান, শুক্রবার বিকেলে মামলাটি কোতয়ালি থানায় হওয়ার পর পুলিশ সুপার মহোদয় মামলাটি ডিবিতে হস্তান্তর করেন। পরে শুক্রবার রাতেই অভিযানে বের হই। নোয়াখালীর একটি ভাড়া বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করি। সে ভুয়া ফেসবুক আইডি দিয়ে বিজ্ঞাপন দাতাদের সাথে যোগাযোগ করতো। প্রতারণার মাধ্যমে বাইক চুরি করার পর ব্যবহৃত মোবাইল সিমটি নষ্ট করতো সে।
শনিবার দুপুরে তাকে আদালতে নিলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারখ বিচারক নুসরাত জাহান ঊর্মি তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।